শিরোনাম

স্বামীদের শায়েস্তায় নববধূদের জন্য মন্ত্রীর উপহার

সর্বশেষ আপডেটঃ ০১:৫০:৪১ অপরাহ্ণ - ০১ মে ২০১৭ | ৩৪০

বিয়েতে বর-কনের জন্য নানা ধরনের উপহার দেয়ার রীতি সব সমাজেই প্রচলিত রয়েছে। মূল্যবান গহনা থেকে শুরু করে আসবাবপত্র এবং আরো নানা ধরনের উপহার সামগ্রী বিয়েতে দেয়া হয়। কিন্তু বিয়েতে উপহার হিসেবে কাঠের ব্যাট দেয়ার মতো ঘটনা মনে হয় অতীতে আর ঘটেনি।

ভারতের মধ্যপ্রদেশে নববধূদের জন্য এমন উপহার দিলেন স্বয়ং রাজ্যের পঞ্চায়েতি রাজ ও গ্রামোন্নয়ন মন্ত্রী গোপাল ভার্গব। স্বামীর সম্ভাব্য নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা এবং মদ্যপ স্বামীকে শায়েস্তা করতেই এই ব্যতিক্রমী উপহার ভাবনা বলে জানিয়েছেন গোপাল।

ভারতের মধ্যপ্রদেশে এক গণ বিয়ের অনুষ্ঠানে গোপাল নব বিবাহিতা মেয়েদের হাতে উপহার সামগ্রী হিসেবে কাঠের ব্যাট তুলে দেন। মন্ত্রী বলেন, তাদের স্বামীরা যদি স্ত্রীদের প্রতি সহিংস হয়ে উঠে তখন নিজেদের রক্ষা করার জন্য কাঠের ব্যাট ব্যবহার করবেন স্ত্রীরা। মধ্যপ্রদেশে নারী নির্যাতনের বিষয়টি সবার সামনে তুলে আনতে প্রতীকী উপহার হিসেবে কাঠের ব্যাট দেয়া হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী। ওই কাঠের ‘ব্যাট’-য়ে লেখা— ‘‘মদ্যপ স্বামীদের পেটানোর জন্য উপহার, পুলিশ কোনও হস্তক্ষেপ করবে না।’’

নব বিবাহিতাদের মন্ত্রী পরামর্শও দিয়েছেন, যেনো স্বামীদের বিরুদ্ধে এ ব্যাট ব্যবহার করার আগে তাদের বোঝানোর চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তারপরেও যদি কোন স্বামী সহিংস হয়ে উঠে তাহলে এ ব্যাট ব্যাবহার করা উচিত বলে মন্তব্য করেন তিনি।

বিয়েতে উপহার হিসেবে ক্রিকেট ব্যাট দেবার ছবি মন্ত্রী তার ফেসবুকেও পোস্ট করে বলেন, গ্রামাঞ্চলে মদ্যপ স্বামীদের হাতে স্ত্রীদের নির্যাতনের ঘটনা তাকে উদ্বিগ্ন করে তুলেছে।

গুজরাত-বিহারের পরে এবার মধ্যপ্রদেশে মদ নিষিদ্ধ করতে উদ্যোগী হয়েছে শিবরাজ সিং চৌহানের সরকার। প্রথম দফায় নর্মদার তীরে পাঁচ কিলোমিটারের মধ্যে সব মদের দোকান বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। গোপাল বলেন, ‘নারীরা আমাকে বলেছেন যে, তাদের স্বামীরা যখন মদ্যপান করে তখন তারা সহিংস আচরণ করে। তাদের জমানো অর্থ ছিনিয়ে নিয়ে স্বামীরা মদ্যপান করে। মদ খেয়ে উপদ্রব সরকার বা পুলিশ কারও একার উদ্যোগে ঠেকানো সম্ভব নয়। সাধারণের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। নিষিদ্ধকরণের আগে এটা বেশি জরুরি। যদি বেশি সংখ্যক মানুষ একযোগে রুখে দাঁড়ায়, তবে সমস্যার সমাধান অনেক সহজে হয়।’

মন্ত্রী জানিয়েছেন তিনি দশ হাজার কাঠের ব্যাট তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন। কয়েকদিন আগে এক গণ বিয়ের অনুষ্ঠানে নব বিবাহিতা মেয়েদের হাতে সাতশ ব্যাট তুলে দেন মন্ত্রী। ভারতে অতি দরিদ্র পরিবারের জন্য বিভিন্ন জায়গায় গণ বিয়ের আয়োজন করা হয়। গণ বিয়ের এ অনুষ্ঠানে পাত্র ও কন্যা পক্ষকে কোন খরচ বহন করতে হয়না।

 

janatarpratidin.com /Md. Bappy /01 May 2017

সর্বশেষ