শিরোনাম

রাজনীতি

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৫:২৫:৩৯ অপরাহ্ণ - ১১ জুন ২০১৭ | ৩৫৫

জীবনটা ভরে এভাবে দলের জন্য শ্রম দিয়ে, নিজের সংসার, সন্তানদের মুখের অন্ন কেড়ে নিয়ে ব্যয় করেছে। সাইকেলে মাইক বেধে নিজেই দলের প্রোগামের কাজ করেছে। বিনিময়ে ছেলেকে ভাল কলেজে ভর্তি করানোর টাকা দিতে পারে নাই।
আর মেয়েদের ক্ষেত্রে একই অবস্থা। এমন কোন দিন নেই যে খাবার বাজারের জন্য রাস্তা চেয়ে বসে থাকতে হয়েছে না। তারপর ও বাবা হয়ে, যে আদর্শ লালন করতে বলেছে, সেটা অবশ্যই পালন করব। যতটুকু জমি জমা ছিল সবটুকুই শেষ।
কি পেয়েছে দল থেকে। আমাকে চাকরি দিতে পারনি,, একটা মেয়েকে চাকরি দিয়েছ মুক্তিযোদ্ধা হয়েও,, আমার শখের গাড়িটা বিক্রি করে, কাকে টাকা দিয়েছ। সেটাও জানি,,,আর বিশেষভাবে বলতে চাই কোথায় কত ঋন করতেছ সেটা কে দিবে।
আমার এবিলিটি নাই। কারন যে শিক্ষা দিয়েছ, অন্যের অর্থ আত্তসাৎ করে তোমার মৃত্যুর পর যেন তোমার জানাযা না দাড়াই।সেটা অবশ্যই পালন করব। রাজনীতি ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলছি সেটাও হচ্ছে না।
আমি কারো ক্ষতি করি না বিধায় মানুষজন আমাকে মনভরে ভালবাসে এবং দোয়া করে। আমার জন্য দোয়া কর, কারো কাছে হাত পাততে না হয়, মরে যাব ঐসব লোকদের নিকট কখনো হাত পাতবোনা, তোমার রাজনীতির জন্য আমি বেশিদুর লেখাপড়া করতে পারিনি।
ছাত্র হিসেবে খারাপ ছিলাম না, এ++ছাত্র ছিলাম। সেটাও বাদ দিলাম এখন আমার দুটো ছেলেকে টাকার জন্য ভাল স্কুলেভর্তি করাতে পারলাম না মুক্তিযোদ্ধার নাতিন হিসেবেও। কারন প্রাইভেট পড়ানো টাকার অভাব,বছর শেষে টাকা সুধি করতর হয় না হলে কর্মক্ষেতের ক্যাশিয়ার সাবের নিকট হইতে বেতনের টাকা এ্যাডভান্স তুলে ফেলি। সঠিক থাকলে আলøাহ কোনদিনও ঠেকাবেনা। তোমার জন্য আমার কষ্ট হচ্ছ,।

মানুষের দাওয়াত রক্ষা করা ইমানী দায়িত্ব। সেটাও আবার জীবনের শেষ দিকে অপবাদ।

সর্বশেষ
%d bloggers like this: