শিরোনাম

রমজানের আগে পণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৬:৪৮:৩৬ অপরাহ্ণ - ২৮ এপ্রিল ২০১৭ | ৩৫৯

মে মাসের শেষের দিকে শুরু হবে রমজান। প্রতিবারই এ পবিত্র মাসের আগে নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের দাম ঊর্ধ্বমুখী থাকে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। সপ্তাহের ব্যবধানে আবারো বেড়ে গেছে মুদি পণ্য ও সবজির দাম।

শুক্রবার মহাখালী কাঁচাবাজার ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে।

সপ্তাহের ব্যবধানে পেঁয়াজ, রসুন, ডালের দাম বেড়েছে ১০ থেকে ৩০ টাকা। এছাড়া নিত্য প্রয়োজনীয় কাঁচা সবজির দামও কেজি প্রতি ৫ থেকে ১০ টাকা করে বেড়েছে।

পেঁয়াজের দাম মানভেদে কেজি প্রতি ৩-৪ টাকা বেড়েছে। গত সপ্তাহে ৩২ টাকা দরে বিক্রি হওয়া দেশি পেঁয়াজ আজকের বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৩৫ টাকায়। আমদানিকৃত ভারতীয় পেঁয়াজ কেজিতে ৪ টাকা বেড়ে ৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে রসুনের দাম কেজি প্রতি ১০-৩০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। গত সপ্তাহে ১২০ টাকা দরে বিক্রি হওয়া দেশি রসুন আজকের বাজারে ১০ টাকা বৃদ্ধি পেয়ে বিক্রি হচ্ছে ১৩০ টাকা। এছাড়া ভারতীয় রসুন কেজিতে ৩০ টাকা বাড়িয়ে ২৩০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া তেলের দাম আগের বাড়তি দামেই বিক্রি হচ্ছে। আজকের বাজারে ৫ লিটারের বোতল ব্র্যান্ড ভেদে ৫০০ থেকে ৫১০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া প্রতি লিটার ভোজ্য তেল ১০০ থেকে ১০৬ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। লবণ কেজিতে ২ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৩৮ টাকায়। দারুচিনি ১০ বেড়ে ৩৬০ টাকা, জিরা ৪৫০ টাকা, শুকনা মরিচ ২০০ টাকা, লবঙ্গ ১৫০০ টাকা, এলাচ ১৬০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

চালের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সব ধরনের চালের দাম কেজিতে ৫-৬ টাকা বেড়েছে। কেজি প্রতি মোটা স্বর্ণা চাল ৪২ টাকা, পারিজা চাল ৪২-৪৩ টাকা, মিনিকেট ভালোটা ৫৫-৫৬ টাকা, মিনিকেট নরমাল ৫২ টাকা, বিআর২৮ ৪৬ টাকা, নাজিরশাইল ৪২-৪৮ টাকা, বাসমতি ৫৬ টাকা, কাটারিভোগ ৭৪-৭৬ টাকা, হাস্কি নাজির চাল ৪১ টাকা এবং পোলাও চাল ১০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে কাঁচা পণ্যের বাজার ঘুরে দেখা গেছে, সব ধরনের সবজির দাম ৫-১০ টাকা হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। সপ্তাহের ব্যবধানে ২০ টাকা বেড়ে প্রতি কেজি কাঁচা মরিচ ৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া টমেটো ৫৫ টাকা, সাদা বেগুন ৬০-৭০ টাকা, ঢেঁড়স ৬০ টাকা, ঝিঙ্গা ৭০ টাকা, চিচিঙ্গা ৭০ টাকা, করলা ৬০ টাকা, কাকরোল ৬০ টাকা, শিম ৫০ থেকে ৫৫ টাকা, শশা ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, গাজর ৫০ টাকা, চাল কুমড়া ৩০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা, পটল ৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

কেজি প্রতি আলু ২০ টাকা, পেঁপে ২৫ থেকে ৩০ টাকার মধ্যে বিক্রি হচ্ছে। ফুলকপি প্রতিটি ৪০ টাকা, বাঁধাকপি ৪০ টাকা এবং লেবু হালি প্রতি ২০ থেকে ৪০ টাকা, পালং শাক আঁটি প্রতি ১৫ টাকা, লালশাক ১৫ টাকা, পুঁইশাক ২০ টাকা এবং লাউশাক ২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

এদিকে মুগ ডালের দাম কেজিতে ১০ টাকা বেড়ে ১৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। এছাড়া মাসকলাই ১৩৫ টাকা, ছোলার ডাল ৯০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

এছাড়া আগের বাড়তি দামেই গরুর মাংস প্রতি কেজি ৫০০ টাকা, খাসির মাংস প্রতি কেজি ৭৫০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। প্রতি কেজি ব্রয়লার মুরগি বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকায়। এছাড়া লেয়ার মুরগি ১৮০, দেশি মুরগি ৪০০, পাকিস্তানি লাল মুরগি ২৮০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।

সর্বশেষ