শিরোনাম

ময়মনসিংহ চরাঞ্চল বাসীর দাবি প্রধানমন্ত্রীর কাছে

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৫:০৭:০৯ পূর্বাহ্ণ - ০৬ মে ২০১৭ | ৪২৩

মো: মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী, ময়মনসিংহ  :
ময়মনসিংহ বিভাগীয় নগরীর সদর উপজেলা ৪ নং পরান গঞ্জ ইউনিয়নের প্রচুর জনসংখ্যা অধ্যুষিত এলাকা যেখানে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের ঘাটি। দেশ স্বাধীনের পর একমাত্র আওয়ামীলীগ ওয়ান থ্রার্ট ভোট পেয়ে থাকে।
অথচ আওয়ামীলীগ ছাড়া এই চরাঞ্চলের নিঃগৃহিত মানুষের দুঃখ- কষ্ট আর কেউ লাগব করে না এবং কি উন্নয়ন মূলক কাজ পর্যন্ত করা হচ্ছে না বলে দাবি সদর উপজেলা ৪ নং পরান গঞ্জ ইউনিয়নবাসীর।
পরান গঞ্জের মানুষের ভাগ্য খুলে ছিল ‘১৯৯৬ সনে আওয়ামীলীগ সরকার’ সময় ৯৮-য়ের দিকে যার বাস্তব উদাহরন হিসেবে নিম্নে আলোকপাত করা হল ঃ–
ডিজিটাল বাংলাদেশের রুপকার স্বাধীনতাযুদ্ধের অগ্রগামী পথিকের সুযোগ্য কন্যা বাংলাদেশকে বিশ্বের দরবারে মধ্যম আয়ের দেশ হিসেবে দাঁড় করানোর কারিগর, ভিশন ২০/২১ এর স্বপ্নদ্রষ্টা, বাংলাদেশ নামক রাষ্টের উদ্ভাবকের সুযোগ্য কন্যা, জননেত্রী শেখ হাসিনা ৯৮ সালে পরান গঞ্জ ইউনিয়নে সফর করতে এসে চরাঞ্চলের জনদূভোর্গ লাগব করতে পেরে একটি ২০ শয্যা হাসপাতালের ঘোষনা, আরো চরাঞ্চল বাসী শহরে যাতায়াত করার সুবিধার্থে শম্ভুগঞ্জ বাজার হইতে পরান গঞ্জ হয়ে বোরর চর শেষ বর্ডার পর্যন্ত।
সবচেয়ে বড় অবদান মৌলিক অধিকার সিকিৎসার জন্য যে ২০ হাসপাতালটি বর্তমানে আমলাতান্ত্রিক জটিলতার জন্য জনাজীর্ন অবস্থা এটিকে দেখভাল করার সরকারী উদ্যোগ নেই, এটি কে যদি ভালভাবে পরিচালনা করা হয় তাহলে বিভাগী শহরের চাপ অনেকটা কমে যাবে। এতে চরাঞ্চল বাসী উপকৃত হবে বলে মনে করেন চরাঞ্চল বাসীর সাধারন জনগন।
জনগনের দাবি উল্লেখ করে এলাকার সাধারন জনগন বলেন, পরান গঞ্জ বাজারে অনেক খাস জমি আছে, সেটাতে সরকার যদি চরাঞ্চলেরর মা ও শিশুদের জন্য বঙ্গবন্ধু মা ও শিশু পরিচর্যা / সুপরামর্শ কেন্দ্র, পাশাপাশি সেই খাস জমিতে যদি শেখ রাসেলের নামানুসারে একটি কৃষি প্রশিক্ষণ কেন্দ করলে কৃষকদের ক্ষতির হাত থেকে রক্ষা পাবে যে চরাঞ্চল থেকে প্রতি বছর ৭-১০ কোটি টাকার রবি শস্য বিক্রি করে থাকে, আরো একটু কৃষি প্রশিক্ষণ দিতে পারলে আরো উন্নয়ন সম্ভব হবে।
ময়মনসিংহ সদর উপজেলা সন্তান কমান্ড সভাপতি মোঞ্জুরুল হক চরাঞ্চল বাসীর পক্ষ থেকে প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে আকুল আবেদন করেন, খাস ভূমি রক্ষা করে সরকারী উদ্যোগে কৃষি প্রশিক্ষন কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা এবং মাও শিশু মৃত্যু হার কমানোর জন্য একটি শেখ রাসেল মাওশিশু পরিচর্যা কেন্দ্র স্থপন সহ  পরান গঞ্জ সদর হাসপাতালকে, সুচিকিৎসা দেওয়ার মত করে চালু করতে। তিনি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে অতি জুরুরি পদক্ষেপ নেওয়ার আকুল আবেদন করেন। তাতে আশপাশ মিলিয়ে অর্থাৎ ১০ কিলো এরিয়ার জনগন প্রায় ২/২.৫ লক্ষ মানুষ চিকিৎসা সেবা পাবে।

 

janatarpratidin.com /Md. Bappy /06 May 2017

 

সর্বশেষ