শিরোনাম

মিঠু হত্যায় ৩০ লাখ টাকা দেন বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৩:১৩:০৩ পূর্বাহ্ণ - ৩১ মে ২০১৭ | ৪২৫

বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতার নির্দেশেই খুলনা জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক সরদার আলাউদ্দিন মিঠু খুন করা হয়েছে। এ কিলিং মিশনে পাঁচজন সরাসরি অংশ নেয়। এতে ৩০ লাখ টাকা সরবরাহ করেন দলটির কেন্দ্রীয় নেতা ড. মামুন রহমান। তিনি এই টাকা ফুলতলা থানা বিএনপির সদস্য সচিব হাসনাত রিজভী মার্শালকে দিয়েছেন।

মঙ্গলবার প্রেস ব্রিফিংয়ে খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি দিদার আহমেদ এ দাবি করেন ।

ডিআইজি দিদার জানান, মার্শাল এই টাকা হত্যাকারীদের মধ্যে লেনদেন করেছেন। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সরদার আলাউদ্দিন মিঠু ও ড. মামুন রহমান দু’জনই খুলনা-৫ (ফুলতলা-ডুমুরিয়া) আসনে বিএনপির প্রার্থী হওয়ার জন্য চেষ্টা করছিলেন। এজন্য মিঠু হত্যায় বিএনপি নেতা ড. মামুন হত্যাকারীদের পারিবারিক বিরোধকে কাজে লাগিয়েছেন।

রেঞ্জ ডিআইজি দিদার আহমেদ বলেন, ‘বিএনপি নেতা সরদার আলাউদ্দিন মিঠুসহ জোড়া হত্যাকাণ্ড সংঘটিত হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পুলিশ, এনআইসি ডিএসবি, ডিবি ও র‌্যাব সম্মিলিতভাবে হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন ও হত্যাকারীদের গ্রেফতারে অভিযান শুরু করে। তাৎক্ষণিকভাবে প্রাপ্ত সাক্ষ্য প্রমাণ ও তথ্যের ভিত্তিতে নিহত মিঠুর দেহরক্ষী ফুলতলা উপজেলার দামোদর গ্রামের মিজানুর রহমানের ছেলে শিমুল হাওলাদার, মৃত জিন্নাহ ভুঁইয়ার ছেলে মুশফিকুর রহমান রিফাত, একই গ্রামের মৃত আব্দুল হান্নান ভুঁইয়ার ছেলে ফুলতলা থানা বিএনপির সদস্য সচিব হাসনাত রিজভী মার্শালকে গ্রেফতার করা হয়।

গত ২৮ মে এই তিনজন খুলনার জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট পলাশ কুমার দালালের আদালতে হত্যাকাণ্ডের সাথে নিজেদের সম্পৃক্ত করে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। উক্ত আসামিদের জবানবন্দির ভিত্তিতে হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত দামোদর পশ্চিমপাড়ার ওমর আলীর ছেলে তাইজুল ইসলাম রনিকে হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত শটগান সদৃশ একটি দেশীয় কাটা বন্দুক ও ১ রাউন্ড কার্তুজসহ গত সোমবার ভোররাতে গ্রেফতার করা হয়। ইতোমধ্যে তার বিরুদ্ধে ফুলতলা থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। তাকে পুলিশ রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘মিঠু হত্যাকাণ্ডে সরাসরি শিমুল হাওলাদার, রেহান, রনি ও মার্শালসহ আটজন জড়িত রয়েছে। তবে তদন্তের স্বার্থে বাকি চারজনের নাম এখুনি বলা যাচ্ছে না।কিলিং মিশনে মোট পাঁচজন সরাসরি অংশ নিয়েছে। মিঠু হত্যাকাণ্ডে চরমপন্থি দল নেতা শিমুল ভুঁইয়া মূল ভূমিকা পালন করেছে।

প্রেস ব্রিফিংয়ে র‌্যাব-৬এর অধিনায়ক খোন্দকার রফিকুল ইসলাম, অতিরিক্ত ডিআইজি (প্রশাসন) মো. একরামুল কবির, অতিরিক্ত ডিআইজি (অপরাধ) হাবিবুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার এস এম শফিউল্লাহ, র‌্যাব-৬’র স্পেশাল কোম্পানি কমান্ডার এনায়েত হোসেন মান্নান উপস্থিত ছিলেন।

 

janatarpratidin.com / Md. Bappy / 30 May 2017

 

এ বিভাগের জনপ্রিয় খবর

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর
%d bloggers like this: