শিরোনাম

বাকৃবি ছাত্রফ্রন্টের দুই গ্রুপের হাতাহাতি, আহত ৫

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৯:২৮:৩৪ অপরাহ্ণ - ২৭ এপ্রিল ২০১৭ | ১২৬

বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রফ্রন্টের দুই গ্রুপের মধ্যে সংগঠনের কার্যালয় দখলকে কেন্দ্র করে হাতাহাতি হয়েছে।

বৃহস্পতিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের জব্বার মোড়স্থ সংগঠনটির কার্যালয়ে উভয় পক্ষের নেতা-কর্মীরা তিন ঘণ্টাব্যাপী থেমে থেমে হাতাহাতি ও মারামারি করে। এ ঘটনায় অন্তত পাঁচজন আহত হয়েছেন।

ছাত্রফ্রন্টের দুই পক্ষই একই নাম ব্যবহার করেন। তবে চার বছর আগে বিভাজনের সময় একটি পক্ষ মার্ক্সবাদী এবং অপরটি বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দলের (বাসদ) মূলধারার অঙ্গসংগঠন।

২০১৩ সালে বিভক্তির পর থেকে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রফ্রন্টের কার্যালয় থেকে মূলধারার নেতা-কর্মীদের বের করে দেন মার্ক্সবাদীরা। গত চার বছর ধরে মার্ক্সবাদীরাই কার্যালয়টি ব্যবহার করে আসছেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরে মূলধারার নেতা-কর্মীরা আঞ্চলিক সভা করার জন্য কার্যালয়ে যান। সেখানে অবস্থান করা মার্ক্সবাদী নেতা-কর্মীরা তাদের বাধা দেন এবং দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়।

বেলা ২টার দিকে মূলধারার নেতা-কর্মীরা কার্যালয়ে তালা লাগিয়ে দেয়ার পর ধারাবাহিকভাবে দুই পক্ষের মধ্যে গণ্ডগোল চলতে থাকে।

ঘটনাস্থলে ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা ও প্রক্টরিয়াল বডির উপস্থিতিতে উভয়পক্ষ বেশ কয়েকবার হাতাহাতি ও মারামারিতে লিপ্ত হয়। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বারবার অনুরোধ করার পরেও দুই পক্ষকে কার্যালয়স্থল থেকে সরিয়ে নিতে পারেনি।

টানা তিন ঘণ্টা ঘটনার ধারাবাহিকতা চলার পর বিকেল ৪টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন দুই পক্ষের প্রতিনিধি নিয়ে আলোচনায় বসার চেষ্টা করলেও ব্যর্থ হয়।

এ বিষয়ে প্রক্টর এ কে এম জাকির হোসেন বলেন, দুই পক্ষের কারোর ন্যূনতম ছাড় দেয়ার মানসিকতা নেই। আলোচনা মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নিলেও কেউ কার্যালয়স্থল ছাড়তে চাচ্ছে না। বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করছি।

সর্বশেষ