শিরোনাম

প্রেমের ফাঁদে ফেলে যুবককে জিম্মি, গ্রেপ্তার ৩

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:৩০:২৫ পূর্বাহ্ণ - ০৯ মে ২০১৭ | ৩৩৩

প্রেমের ফাঁদে ফেলে যুবককে জিম্মি করে মুক্তিপণ আদায়ের চেষ্টার অভিযোগে প্রতারক চক্রের দুই নারীসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) পুলিশ। রবিবার দিবাগত রাতে নগরীর নওদাপাড়া ও কোর্ট স্টেশন এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

এরা হলেন, নওগাঁর মান্দা উপজেলার চৌবাড়িয়া গ্রামের মৃত জমির উদ্দিনের মেয়ে সারোয়ার জাহান ওরফে রিতু, নগরীর মধ্য নওদাপাড়া এলাকার আবুল বাশার ওরফে জুয়েলের স্ত্রী পপি বেগম এবং শ্রীরামপুর এলাকার হাসেম শেখের ছেলে মো. শাহীন।

সোমবার রাতে রাজশাহী মহানগর পুলিশের (আরএমপি) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এসব তথ্য জানানো হয়। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গ্রেপ্তার হওয়া তিনজন সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্রের সদস্য। তারা সাধারণত সহজ-সরল ব্যক্তিদের মোবাইল নম্বর সংগ্রহ করেন এবং ফোনালাপের মাধ্যমে তাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলেন।

এরপর তাকে ডেকে এনে জিম্মি করে আদায় করা হয় বড় অংকের মুক্তিপণ। এই চক্রের আরও দুই সদস্যর সন্ধান পেয়েছে পুলিশ। তারা পলাতক আছেন। তাদের আটকের চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

আরএমপির মুখপাত্র ইফতেখায়ের আলম জানান, মোবাইল ফোনে চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার দৌলতবাড়ি এলাকার এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন রিতু। রবিবার দুপুরে রিতু মোবাইল ফোনে ওই যুবককে নগরীর শালবাগান পেট্রোল পাম্পের সামনে দেখা করতে বলেন।

কথামতো ওই যুবক রিতুর সঙ্গে দেখা করতে গেলে তাকে কৌশলে পপি বেগমের বাড়িতে নিয়ে যান রিতু। এরপর পরিকল্পনা মোতাবেক সেখানে রিতু, পপি ও শাহীনসহ আরও দুইজন ওই যুবককে একটি কক্ষে আটকে রাখেন। এ সময় কেড়ে নেওয়া হয় ওই যুবকের কাছে থাকা ১১ হাজার টাকা এবং একটি মোবাইল ফোন।

এরপর ওই যুবকের মোবাইল থেকেই তার নিকটাত্মীয়দের ফোন করে বিকাশে এক লাখ ১০ হাজার টাকা পাঠাতে বলেন প্রতারকরা। টাকা না দিলে ওই যুবকের বড় ধরনের ক্ষতি করা হবে বলেও হুমকি দেন তারা। বাধ্য হয়ে ওই যুবকের স্বজনরা বিষয়টি ডিবি পুলিশকে জানান। এরপর ওই যুবককে উদ্ধারে তৎপরতা শুরু করে ডিবি পুলিশ।

পুলিশের তৎপরতা বুঝতে পেরে আসামিরা ওই যুবককে ওই দিন বিকালে মধ্য নওদাপাড়ার একটি রাস্তায় রেখে পালিয়ে যান। পরবর্তীতে ওই যুবকের কাছ থেকে তথ্য নিয়ে ডিবি পুলিশ প্রতারক রিতুকে রাত ১০টার দিকে মধ্য নওদাপাড়া এলাকা থেকে আটক করে। এরপর তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কোর্ট স্টেশন এলাকা থেকে রাত ১টার দিকে পপি ও শাহীনকে আটক করা হয়।

পুলিশ জানিয়েছে, প্রতারক রিতু, পপি ও শাহীনের বিরুদ্ধে নগরীর শাহমখদুম থানায় একটি মামলা করেছেন প্রতারিত ওই যুবক। সোমবার বিকালে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারেও পাঠানো হয়েছে।

 

janatarpratidin.com /Md. Bappy /09 May 2017

 

এ বিভাগের জনপ্রিয় খবর

সর্বশেষ