শিরোনাম

ত্রিশালে স্বেচ্ছাশ্রম ও গ্রামবাসীর অর্থায়নে নির্মিত হচ্ছে সুতিয়া ব্রিজ

সর্বশেষ আপডেটঃ ০২:৪৪:৪৯ অপরাহ্ণ - ৩০ এপ্রিল ২০১৭ | ১৬০

ময়মনসিংহ জেলার ত্রিশাল উপজেলার বইলর ইউনিয়নের বাশঁকুড়ি ও ধানীখোলা ইউনিয়নের দক্ষিন ভাটিপাড়া গ্রামের দু’পাড়ের বাসিন্দারা মিলে সুতিয়া নদীর উপর স্থানীয় এলাকাবাসীর অর্থায়নে ও স্বেচ্ছাশ্রমে পাকা সেতু নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে। ব্রিজের নির্মাণ কাজে সরকারি সহায়তার দাবি স্থানীয়দের।

এলাকাবাসি জানান, নদী পারাপারের জন্য ঐ স্থানে কোন সেতু না থাকায় উপজেলা সদরে যাওয়া আসার জন্য স্থানীয়দের ৩ কিলোমিটার ঘুরে যেতে হয়। সময় আর অর্থ ব্যয় থেকে বাচঁতে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রাসা পড়–য়া শিক্ষার্থী ও স্থানীয়দেরকে হাট বাজারে যাতায়াতের জন্য দীর্ঘদিন ধরে বাশেঁর সাকো ব্যবহার করে আসছিল। রোদে জ্বলে বৃষ্টিতে ভিজে বাশঁ ও কাঠ সব নষ্ট হয়ে যাওয়ার ফলে প্রতি বছরের শুকনো মৌসুমে সাকোঁ

টি মেরামত করা অপরিহার্য হয়ে পড়ে। ওই সাঁকোটি চলাচলের অনুপযোগি হয়ে পড়লেই ৩ কিলোমিটার ঘুরে উপজেলা সদর ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যেতে হয় বাশঁকুড়ি গ্রামবাসিকে।

ত্রিশাল মহিলা ডিগ্রি কলেজ, নজরুল বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, কারিগরি ও বানিজ্যিক কলেজ, ইসলামী একাডেমী স্কুল এন্ড কলেজ, আব্বাছিয়া ফাজিল মাদ্রাসা ও উজানপাড়া মহিলা দাখিল মাদ্রাসাসহ বেশিরভাগ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বাশঁকুড়ি গ্রামের পাশঘেঁষে বয়ে যাওয়া সুতিয়া নদীর অপর পারে। এছাড়া সেতুটি নির্মাণ হলে ধানীখোলা দক্ষিন ভাটিপাড়াসহ আশপাশের গ্রামের মানুষগুলোও অল্প সময়ে ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে যেতে পারবে। এ সমস্যা থেকে উত্তরনের জন্য সুতিয়া নদীর উপর ২৫০ ফিট দৈঘ্য ও ৭ ফিট প্রস্থ পাকা সেতু নির্মাণের জন্য এলাকার স্বাবলম্বীদের কাছ থেকে ও নিজেদের অর্থ দিয়ে স্বেচ্ছাশ্রমে ব্যস্ত দু’পাড়ের বাসিন্দারা। ইতিমধ্যেই ৩ লক্ষাধিক টাকা খরচ হয়েছে নির্মাণ কাজে।

ঐ এলাকায় গিয়ে দেখা যায়, অনেক গ্রামবাসী মিলে স্বেচ্ছাশ্রমে ও অর্থ দিয়ে সেতুটির নির্মাণ কাজে সহযোগিতা করছেন।

চাঁন মিয়া (৬৫) জানান, প্রতিটি নির্বাচনের আগে জনপ্রতিনিধিরা সেতুটি নির্মাণের প্রতিশ্রুতি দিলেও পরে আর তাদেরকে খুঁেজ পাওয়া যায় না।

স্থানীয়রা জানান, এ এলাকার ছেলে-মেয়েদের লেখাপড়ার প্রতি আগ্রহ বেড়েছে, তাছাড়া কম সময়ে কম অর্থ ব্যয়ে হাট-বাজারে যাওয়া আসার জন্য সেতু নির্মানের ব্যাপক প্রয়োজনীয়তা  দেখা দিয়েছে।তাই আমরা বাধ্যহয়েই নিজেরাই এই ব্রিজ নির্মাণ করছি।

 

janatarpratidin.com /Md. Bappy /30 April 2017

সর্বশেষ