শিরোনাম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আমাকে সম্মান দিয়েছে: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৪:৩০:২৫ অপরাহ্ণ - ০১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৩০৫

বাবা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের মতোই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েও পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আর এই দুঃখ বরাবর থাকবে বলে জানিয়েছেন তিনি।

শনিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হলে নবনির্মিত ৭ মার্চ ভবন উদ্বোধন করতে গিয়ে এ কথা জানান আওয়ামী লীগ সভাপতি। ছাত্র জীবনে এই হলটিতেই থাকতেন তিনি। আর সেখানেই এই অনুষ্ঠানে যোগ দেয়াটাও গর্বের বলে জানান তিনি।

শেখ হাসিনা জানান, তার আপন ভাই শেখ কামালও ছাড়াও মামাত ভাই প্রয়াত শেখ ফজলুল হক মনি, শেখ ফজলুল করিম সেলিমও এই বিশ্ববিদ্যালয়েই পড়াশোনা করেছেন। তবে তার নিজের ডিগ্রিটা শেষ করতে না পারার দুঃখ রয়ে গেছে।

‘দুঃখটা এটাই, আবার বাবাও তার পড়াশোনাটা শেষ করতে পারেননি, বিশ্ববিদ্যালয় থেকে, তাকে বহিষ্কার করা হয়েছিল। আর আমার ভাগ্যে জুটেছিল এটা যে আমি ৭৫ এ যখন জার্মানিতে চলে যাই এই বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী হিসেবেই।’

‘মাত্র ১৫ দিন আগে (১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের আগে) আমি দেশ ছেড়েছিলাম। এরপর ছয় বছর আর ফিরে আসতে পারিনি। আমি মাস্টার্সে ভর্তি হয়েছিলাম। কিন্তু তা আর সমাপ্ত করতে পারিনি। আমার সে শিক্ষা অধরাই থেকে গেল। এই দুঃখটা আমার মনে সব সময় আছে, আমার মনে সব সময় থাকবে।’

শেখ হাসিনার বাবা বঙ্গবন্ধু পাকিস্তান আমলে ১৯৪৯ সালে আইন বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র থাকাকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কৃত হন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারীদের জন্য আন্দোলনে নেমে পাওয়া এই শাস্তি অবশ্য এড়াতে পারতেন জাতির জনক। কিন্তু তিনি ১৫ টাকা জরিমানা দিতে রাজি হননি। ফলে আর পড়াশোনাও করা হয়নি তার।

৬১ বছর পর ২০১০ সালের ১৪ আগস্ট সে বহিষ্কারাদেশ প্রত্যাহার করে নেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

অন্যদিকে দেশ স্বাধীন হওয়ার পর নির্বিঘ্নে পড়াশোনা করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ডিগ্রি সর্বোচ্চ নেয়ার স্বপ্ন ছিল শেখ হাসিনার। কিন্তু বাবা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার কারণে সেটা সম্ভব হয়নি। ছয় বছর পর ১৯৮১ সালে দেশে ফেরার পর আর সে সুযোগ ছিল না।

‘এই বিশ্ববিদ্যালয় আমাকে সম্মান দিয়েছে, আমাকে অনারারি (সম্মানসূচক) ডিগ্রি দিয়েছে, সে জন্য কৃতজ্ঞ এই বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতি। তার পরেও নিজে পড়াশোনা করে একটা ডিগ্রি নেয়া…’।

“যখন চিন্তা করলাম দেশ স্বাধীন হয়েছে, সব সময় তো আমাদের জীবনে ঝড় ঝাপটা গেছে, তখনই আমার মাকে বলেছিলাম, ‘মা এবারই প্রথম মনযোগ দিয়ে পড়াশোনা করব এবং ভালোভাবে আমি মাস্টার ডিগ্রিটা নেব’। কিন্তু সেটা আমার ভাগ্যে জুটল না”- আক্ষেপ ঝরে পড়ে শেখ হাসিনার কণ্ঠে।

সর্বশেষ
%d bloggers like this: