শিরোনাম

ঠাকুরগাওঁ ছাত্রদলের নেতৃত্বে ট্রাকচালক:দুই শতাধিক নেতাকর্মীর পদত্যাগ

সর্বশেষ আপডেটঃ ০২:৩১:০০ পূর্বাহ্ণ - ০৫ মে ২০১৭ | ১১৬

ঠাকুরগাওঁ জেলা ছাত্রদলে অছাত্র, ট্রাকচালককে নেতৃত্বে আনার প্রতিবাদে ও নতুন কমিটিতে সুবিধাজনক পদ না পাওয়ায় সহ-সভাপতি রবিন, পৌর ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি সুরখাব, রনিসহ বিভিন্ন শাখার প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মী ছাত্রদল থেকে পদত্যাগ করেছেন। একটি নির্ভরযোগ্য সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

গত বুধবার রাতে ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির কাছে লিখিতভাবে তাদের অব্যাহতিপত্র জমা দেন।

পদত্যাগকারী জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রবিন জানান, দীর্ঘ ১৫ বছর যাবৎ জেলা ছাত্রদলের নেতৃত্ব দিয়ে যারা রাজপথ কাঁপিয়েছে তাদের বাদ দিয়ে নতুন কমিটিতে অছাত্র, ট্রাকচালককে সাধারণ সম্পাদক পদ দেয়া হয়। ওই নেতৃত্বে জেলা ছাত্রদল কখনো সুসংগঠিত হতে পারে না। তাই আমিসহ অনেক নেতাকর্মী ছাত্রদল থেকে অব্যাহতিপত্র জমা দিয়েছি।

পৌর ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি সুরখাব জানান, ঠাকুরগাঁওবাসীর দীর্ঘদিনের প্রতিক্ষা ছিল- জেলা ছাত্রদলের নতুন কমিটিতে দলের দুঃসময়ের কাণ্ডারীদের ভাল জায়গায় রাখা হবে। কিন্তু অযোগ্য কতিপয় ব্যক্তিকে মূল দায়িত্ব অর্পণ করায় জাতীয়তাবাদী শক্তিকে টিকিয়ে রাখা অসম্ভব হয়ে পড়বে। তাই ছাত্রদল থেকে পদত্যাগ করছি।

পৌর ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম-আহ্বায়ক সোহেল রানা বলেন, ‘ঘোষিত কমিটিতে একজন ট্রাক শ্রমিককে জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। একজন ছাত্রনেতা শিক্ষার্থীদের প্রতিনিধিত্ব করবেন। কিন্তু যে কখনো কলেজে পা দেয়নি, এমন একজন শ্রমিকের কাছ থেকে এসব কী করে আশা করবেন?

নতুন ছাত্রদলের সভাপতি কায়েসের কাছে নেতাকর্মীদের পদত্যাগের সত্যতা জানতে চাইলে তিনি জানান, আমি বিষয়টি এখনো অবগত নই।

ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির সদস্য পয়গাম আলী জানান, বিএনপির দুঃসময়ে অনেক ছাত্রদল কর্মী আন্দোলনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। অনেকে পদ থেকে বঞ্চিত হওয়ার অভিমানেই অব্যাহতিপত্র জমা দিতে এসেছে। আমরা নেতাকর্মীরা তাদের অভিমান ভাঙিয়ে ছাত্রদলকে আরো শক্তিশালী করে গড়ে তুলব।

প্রসঙ্গত, গত ২৯ এপ্রিল দীর্ঘ ১৫ বছর পর ঠাকুরগাঁও জেলা ছাত্রদলের সম্মেলন হয়। সম্মেলনের উদ্বোধন করেন কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতি রাজীব আহসান।

প্রধান অতিথি ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

সম্মেলনের ১ম অধিবেশন শেষে বিএনপি মহাসচিবের উপস্থিতিতে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের সভাপতি রাজীব আহসান জেলার নতুন ছাত্রদলের সভাপতি কায়েস, সাধারণ সম্পাদক অহিদুল ইসলাম, সাংগঠনিক সম্পাদক সুমন ইসলামের নাম ঘোষণা করেন। এতে ছাত্রদলের কিছু ত্যাগী নেতার নাম বাদ পড়েন। তাতে ক্ষুদ্ধ হয়ে উঠে অনেকে। বিএনপির মহাসচিবের সামনে সভাস্থল ত্যাগ করেন পদ বঞ্চিতরা।

এরপর থেকে পদবঞ্চিত নেতাকর্মীরা ছাত্রদল থেকে অব্যাহতি নেয়ার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। বুধবার রাতে ঠাকুরগাঁও পৌর এলাকার গোলায়পাড়া বিএনপি ও ছাত্রদলের ‘দুঃসময়ের অতন্ত প্রহরী’ হিসেবে পরিচিত প্রায় দুই শতাধিক নেতাকর্মী ঠাকুরগাঁও জেলা বিএনপির আহবায়ক কমিটির কাছে লিখিতভাবে সকল কার্যক্রম থেকে অব্যাহতি চেয়ে অব্যাহতিপত্র জমা দেন।

 

janatarpratidin.com /Md. Bappy /05 May 2017

সর্বশেষ