শিরোনাম

আদালতে স্বীকারোক্তি দিলেন আমির হামজা

সর্বশেষ আপডেটঃ ০১:৩১:৪২ পূর্বাহ্ণ - ০১ জুন ২০২১ | ১০৩

সংসদ ভবনে তলোয়ার নিয়ে হামলার পরিকল্পনার অভিযোগে করা মামলায় আলোচিত ইসলামী বক্তা আমির হামজা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। পাঁচদিনের রিমান্ড শেষে মুফতি আমির হামজাকে সোমবার আদালতে হাজির করেন মামলার তদন্ত কর্মকর্তা কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইমের (সিটিটিসি) পুলিশ পরিদর্শক কাজী মিজানুর রহমান।

আমির হামজা স্বেচ্ছায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে রাজি হওয়ায় তা রেকর্ড করার আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা। এরপর ঢাকা মহানগর হাকিম মোর্শেদ আল মামুন ভূঁইয়া তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। ওয়াজের মাধ্যমে ধর্মের অপব্যাখ্যা ও উগ্রবাদ ছড়ানোর অভিযোগে আমির হামজা তার দোষ স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দেন। এরপর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।

গত ২৫ মে রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় দায়ের করা সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় আমির হামজার পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

গত ৫ মে তলোয়ার নিয়ে সংসদ ভবনে হামলা চালানোর সময় সাকিব নামে এক যুবককে গ্রেপ্তার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। সাকিবকে আটকের পর শেরেবাংলা নগর থানায় সন্ত্রাসবিরোধী আইনে মামলা করা হয়। ওই মামলায় সাকিবসহ আলী হাসান উসামা ও মাওলানা মাহমুদুল হাসান গুনবীকে আসামি করা হয়।

সিটিটিসি সুত্রে জানা গেছে, মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, সাকিব মোবাইল ফোনে উগ্রবাদ বার্তা সংবলিত ভিডিও প্রচারকারী আলী হাসান উসামা, মাহমুদুল হাসান গুনবী, আমির হামজা, হারুন ইজহার প্রমুখ ব্যক্তির উগ্রবাদী জিহাদি হামলার বার্তা সংবলিত ভিডিও দেখে উগ্রবাদে আসক্ত হন।

ওই এজাহারে আমির হামজার নাম ছিল। তার সুত্র ধরেই ২৪ মে বিকেলে কুষ্টিয়া থেকে আমির হামজাকে গ্রেপ্তার করে সিটিটিসি। অভিযোগ আনা হয়, আমির হামজা ওয়াজ মাহফিলে ইসলামের নামে বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়িয়েছেন। ইউটিউবে প্রকাশিত তার বেশকিছু বক্তব্য উগ্রবাদ ছড়াচ্ছে। যা শুনে কোমলমতি কিশোর তরুণরা জঙ্গিবাদে আকৃষ্ট হচ্ছে। সম্প্রতি হেফাজতে ইসলামের নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার অভিযানের কারণে আত্মগোপনে ছিলেন আমির হামজা।

সর্বশেষ
%d bloggers like this: