শিরোনাম

৩০ ডিসেম্বর ব্যালটের মাধ্যমে উচিত শিক্ষা দেওয়া হবে

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:২১:১২ পূর্বাহ্ণ - ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ১১২
মো. মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী, ময়মনসিংহ : গ্রেপ্তার এড়িয়ে ২৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত মাটি কামড়ে পড়ে থাকুন, ৩০ ডিসেম্বর আওয়ামী লীগকে ব্যালটের মাধ্যমে উচিত শিক্ষা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না।
তিনি বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নির্বাচনে অংশ নেওয়ায় আওয়ামী লীগের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। ভয়-ভীতি, মামলা-হামলা, ভোট চুরি করে আওয়ামী লীগ জিততে পারবে না।
শনিবার রাতে রেলওয়ে কৃষ্ণচূড়া চত্বরে ময়মনসিংহ-৪ সদর আসনের প্রার্থী আবু ওয়াহাব আকন্দের সমর্থনে আয়োজিত পথসভায় তিনি একথা বলেন।
জনসভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ডা. এ জেড এম জাহিদ হোসেন বলেছেন, বিগত ১২ বছর বিএনপির নেতাকর্মীরা রাতে বাড়িতে ঘুমাতে পারেনি। জুলুম-নির্যাতনে বিএনপিসহ দেশের মানুষ আজ দিশেহারা হয়ে পড়েছে। তাই সব ভেদাভেদ ভুলে ৩০ ডিসেম্বর ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীকে ভোট দিয়ে বিজয় নিশ্চিত করুন। তবেই বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবং দেশের অবরুদ্ধ গণততন্ত্র মুক্তি পাবে।
গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় এলে দেশে চলমান সব মেগাপ্রকল্প চালু রাখা হবে। ওইসব প্রকল্পে আমাদের খরচ হবে এক চতুর্থাংশ। তিনি বলেন, আমরা ক্ষমতায় গেলে ওষুধ ও চিকিৎসা খরচ অর্ধেকে নামিয়ে আনব। দুর্নীতি বন্ধ করব।
জনসভায় জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেন, আপনি দশ বছর বাংলাদেশের মানুষকে ঘুমাতে দেন নাই। ছাত্র রাজনীতিবিদদেরও ঘুমাতে দেন নাই। আমাদের নেতাকর্মীদের ঘুম হারাম করে দিয়েছেন। রাতে ধরে নিয়ে সকালে লাশ ফেলে দিয়েছেন। জাতিকে দ্বিধাবিভক্ত করেছেন। তাই এই ভোট মানুষের জন্য ভোট, এই ভোট জালিমের বিরুদ্ধে ভোট। জুলুমের বিরুদ্ধে অন্যায়ের বিরুদ্ধে ভোট।
ময়মনসিংহ জেলা ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ও নগর বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে নির্বাচনী জনসভায় আরো বক্তব্য দেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি আবদুল কাদের সিদ্দিকীসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
এর আগে ত্রিশালে পথসভায় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী (ময়মনসিংহ-৭) ডা. মাহবুবুর রহমানের পক্ষে ভোট চান নেতারা।
সর্বশেষ