শিরোনাম

সড়কের নির্মাণ কাজে অনিয়ম, কাজ বন্ধ করে দিলেন এমপি নাজিম উদ্দিন

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৫:২৮:১৫ পূর্বাহ্ণ - ০২ জুলাই ২০১৯ | ৩৬

মো. মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী, ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহের গৌরীপুর-কলতাপাড়া সড়কের নির্মাণ কাজে অনিয়ম ও নিম্নমানের মালামাল ব্যবহারের প্রমাণ পেলেন ময়মনসিংহ-৩ গৌরীপুর আসনের সংসদ সদস্য বীরমুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ।

সোমবার সড়কের নির্মাণকাজ পরিদর্শনকালে নিম্নমানের মাল অপসারণ না করা পর্যন্ত নির্মাণ কাজ বন্ধের নির্দেশ দেন।

এ সড়ক নির্মাণ কাজে অনিয়ম, ইটের ১নং সুররির স্থলে রাবিশ ব্যবহার নিয়ে দৈনিক যুগান্তরে ২৬ জুন ও ১ মে ‘সুরকির সঙ্গে ব্যবহার হচ্ছে রাবিশ’ শিরোনামে পৃথক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়।

প্রতিবেদন প্রকাশের পরপরই বিভাগীয় কর্মকর্তাগন নির্মাণ কাজ পরিদর্শনকালেও রাবিশ ও পঁচা সুররি অপসারণ করা হয়নি।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে, সাদা রঙের গাড়িতে চড়ে আসা কর্মকর্তাগণ আপ্যায়নে মুগ্ধ হয়ে চলে যান। এরপর রাস্তায় আরও নিম্নমানের মালামাল ব্যবহার করা হয়।

এসব প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে সোমবার নির্মাণকাজ পরিদর্শনে আসেন বীরমুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি। তিনিও ঘটনাস্থলে নিম্নমানের পাথর, বিটুমিন ব্যবহার ও রাস্তায় পঁচা সুরকির সন্ধান পান।

জানতে চাইলে নাজিম উদ্দিন আহমেদ এমপি বলেন, গৌরীপুর-কলতাপাড়া সড়কের কাজ পরিদর্শন করেছি। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে নির্মাণকাজে ব্যবহৃত নিম্নমানের ইট, খোয়া ও পাথর সরিয়ে নিতে বলেছি। যতক্ষণ পর্যন্ত নতুন মালামাল না আনা হবে ততক্ষণ পর্যন্ত কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি এলজিইডি প্রকৌশলীকে কাজের প্রতি নজরদারি রাখার কথা বলেছি।

স্থানীয় ও এলজিইডি সূত্রে জানা গেছে, ৩ কোটি ২০ লাখ ২৫ হাজার ৪৩৬ টাকা ব্যয়ে গৌরীপুর থেকে কলতাপাড়া পর্যন্ত ৩ হাজার ৮৩০ মিটার দৈর্ঘ সড়ক সংস্কার ও মেরামত কাজ শুরু হয়েছে। ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স ইমতিয়াজ আহমেদ এই নির্মাণ কাজ করছেন। কিন্তু নির্মাণ কাজ শুরু হওয়ার পর অনিয়ম ও দুর্নীতির মাধ্যমে সড়কে নিম্নমানের ইট, খোয়া, রাবিশ ও পাথর ব্যবহৃত থাকে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী (এলজিইডি) আবু সালেহ মো. ওয়াহিদুল হক বলেন, নির্মাণ কাজ নিয়ে কিছুটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। এখন এমপি সাহেবের নির্দেশনা অনুযায়ীই কাজ শুরু করা হয়েছে।

সর্বশেষ