শিরোনাম

সারা দেশে বেপরোয়া হয়ে ওঠেছে পুলিশ!

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৪:০৯:২৫ পূর্বাহ্ণ - ১৩ ডিসেম্বর ২০১৮ | ৩৭

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে সারা দেশে বেপরোয়া হয়ে ওঠেছে পুলিশ। চাঁদপুর, যশোরের চৌগাছা, চট্টগ্রামের বাকলিয়া, লোহাগাড়া, মিরসরাই, ঝালকাঠির রাজাপুর, নেত্রকোনা, পিরোজপুর ও ঝিনাইদহের মহেশপুর থেকে পুলিশ জেলা- উপজেলা জামায়াতের আমির ও সেক্রেটারিসহ বিরোধী জোটের ২৭ নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে। এসব নেতাকর্মীকে গ্রেফতারের নিন্দা জানিয়ে তাদের মুক্তির দাবি জানিয়েছেন নিজ নিজ ও অঙ্গসংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

চাঁদপুর সংবাদদাতা জানান, বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী চাঁদপুর জেলা সেক্রেটারি ও ২০ দলীয় জোটের অন্যতম নেতা বিশিষ্ট ইসলামি চিন্তাবিদ মাওলানা বিল্লাল হোসেন মিয়াজীকে আটক করেছে চাঁদপুর গোয়েন্দা পুলিশ। গত রোববার বিকেলে পেশাগত দায়িত্ব পালনরত আল আমিন একাডেমি বাবুরহাট ক্যাম্পাস থেকে গোয়েন্দা পুলিশ সদস্যরা তাকে আটক করে নিয়ে যান।

পারিবারিক সূত্র জানায়, তিনি সকালে স্কুলে পেশাগত দায়িত্ব পালনে যান। দুপুরে খবর পাওয়া যায় স্কুলে কর্মরত চেয়ার থেকে তাকে আটক করা হয়েছে। তিনি বর্তমানে চাঁদপুর মডেল থানায় আছেন। তার বিরুদ্ধে কোনো মামলার ওয়ারেন্ট নেই। তাকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি শারীরিকভাবে অসুস্থ গত কয়েক দিন ধরে। দ্রুত তার মুক্তি কামনা করেছেন তার পরিবার।

মাওলানা বিল্লাল হোসেন মিয়াজীকে অন্যায়ভাবে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়েছেন চাঁদপুর জেলা জামায়াতের শূরার সদস্য ও চাঁদপুর শহর আমির শাহ আলমসহ ইসলামী ছাত্রশিবিরের নেতৃবৃন্দ। নেতৃবৃন্দ অন্যায়ভাবে গ্রেফতার সবার নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেন এবং তাদের ন্যক্কারজনকভাবে গ্রেফতারের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষ যখন একটি অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের জন্য উন্মুখ হয়ে আছে তখন পুলিশ এখনো গণগ্রেফতার, গায়েবি মামলা ইত্যাদি দিয়ে অস্থিতিশীল পরিবেশ সৃষ্টির পাঁয়তারা করছে। সরকার পুলিশ দিয়ে জামায়াত-শিবির ও ২০ দলীয় জোট নেতাকর্মীদের অন্যায়ভাবে গ্রেফতার করে নির্বাচন বানচাল করার ষড়যন্ত্র করছে।

চৌগাছা (যশোর) সংবাদদাতা জানান, যশোরের চৌগাছা উপজেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মাওলানা আব্দুল কাদের ও পৌর জামায়াতের আমির মাওলানা আব্দুল খালেককে গ্রেফতার করেছে চৌগাছা থানা পুলিশ। গতকাল দুপুরে মাওলানা আব্দুল কাদেরকে নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান দশপাকিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয় এলাকা থেকে ও মাওলানা আব্দুল খালেককে হাজরাখানা দাখিল মাদরাসা এলাকা থেকে আটক করে পুলিশ।
মাওলানা আব্দুল কাদের উপজেলার পাশাপোল গ্রামের বাসিন্দা। তিনি পাশাপোল ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এবং দশপাকিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ইসলাম ও নৈতিক শিক্ষা বিষয়ের শিক্ষক। মাওলানা আব্দুল খালেক পৌরসভার পাঁচনমনা গ্রামের বাসিন্দা। তিনি হাজরাখানা পীর বলুহ দেওয়ান দাখিল মাদরাসার সহকারী মৌলভি শিক্ষক।

এ দিকে তাদেরকে নিজ নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান এলাকা থেকে আটক করে নাশকতার মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে আদালতে পাঠানো হয়েছে। তাদের আটকের ব্যাপারে তীব্র নিন্দা জানিয়ে যশোর-২ (চৌগাছা-ঝিকরগাছা) আসনের ধানের শীষের প্রার্থী মুহাদ্দিস আবু সাঈদ মোহাম্মদ শাহাদৎ হুসাইন বলেন, আমাদের নেতাকর্মীদের পুলিশ অন্যাযভাবে আটক করেছে।

চট্টগ্রাম ব্যুরো জানায়, চট্টগ্রাম নগরীর বাকলিয়া থানার দক্ষিণ বাকলিয়া ওয়ার্ড বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ইয়াকুব চৌধুরী নাজিমকে (৪৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল সকালে বাকলিয়া থান পুলিশ নগরীর কেতোয়ালি এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করে। ইয়াকুব চৌধুরী নাজিম বাকলিয়া এলাকার আলী আফজাল চৌধুরীর ছেলে।

রাজাপুর (ঝালকাঠি) সংবাদদাতা জানান, ঝালকাঠির রাজাপুর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক নাসিম উদ্দিন আকনসহ বিএনপির তিন নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গতকাল
দুপুরে নাসিম আকনকে বাগড়ির বাসা থেকে গ্রেফতার করে রাজাপুর থানা পুলিশ। এর আগে মঙ্গলবার ভোররাতে উপজেলার উত্তর বাগড়ি গ্রামের বাড়ি থেকে মৃত মেনাজ উদ্দিন সিকদারের ছেলে বিএনপি নেতা ইলিয়াস সিকদার ও দক্ষিণ রাজাপুর গ্রামের মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে বিএনপি নেতা গোলাম আজমকেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। উপজেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাডভোকেট তালুকদার আবুল কালাম আজাদ জানান, অন্যায়ভাবে তাদের নির্বাচন কার্যক্রম নষ্ট করার জন্য নেতাকর্মীদের গ্রেফতার শুরু করেছে। প্রতিদিন রাতে নেতাকর্মীদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি করে গ্রেফতার করা হচ্ছে। এতে সবাই আতঙ্কিত।

পিরোজপুর সংবাদদাতা জানান, জাতীয় সংসদের ১২৭ পিরোজপুর-১ আসনে (নেছারাবাদ, নাজিরপুর, পিরোজপুর সদর) ২০ দলীয় জোটের শরিক জামায়াত প্রার্থী শামীম সাঈদীর মনোনয়নপত্রে প্রস্তাবক মো: সোহরাব হোসেন, সমর্থক মাওলানা শওকত, মাদরাসা শিক্ষক মো: নূরুল ইসলাম ও মাইক্রোচালক মোস্তফাকে ডিবি পুলিশ আটক করেছে। ডিবি পুলিশের ওসি মো: মিজানুল হক আটকের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, তারা একটি মিটিং করছিল। এ জন্য তাদের এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। পিরোজপুর জেলা জামায়াতের সেক্রেটারি মাওলানা আব্দুর রব জানিয়েছেন মঙ্গলবার দুপুরে আল্লামা সাঈদী ফাউন্ডেশন ক্যাম্পাসে অবস্থিত ইসলামিয়া টেকনিক্যাল কলেজের প্রভাষক মো: সোহরাব হোসেন, তাফহীমুল কুরআন দাখিল মাদরাসার সুপার মাওলানা শওকত হোসেন ও সহকারী শিক্ষক মো: নূরুল ইসলামকে প্রতিষ্ঠানের নিজ নিজ কর্মস্থল থেকে আটক করে। তিনি জানান এ সময় ক্যাম্পাসে থাকা একটি মাইক্রোবাসসহ চালক মোস্তফাকে নিয়ে গেছে তারা।

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা জানান, মিরসরাইয়ে মোজাম্মেল হোসেন নামে এক ছাত্রদল নেতাকে গ্রেফতার করেছে জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ। গত সোমবার রাতে উপজেলার কাটাছড়া এলাকায় নিজ বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়। মোজাম্মেল উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদকের দায়িত্বে ছিলেন।

এ দিকে মোজাম্মেল হোসেনকে গ্রেফতারের তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম-১ মিরসরাই আসনে বিএনপির প্রার্থী নুরুল আমিন।

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতা জানান, ঝিনাইদহের মহেশপুর থানা পুলিশ গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে উপজেলার নতুন কোলা গ্রামের মহিলা জামায়াত কর্মী হিসেবে আছিয়া খাতুন ও পৌর এলাকার বোঁচিতলা গ্রামের বিলকিছ খাতুন এবং জামায়াত কর্মী গাড়াপোতা গ্রামের কিতাব আলীকে আটক করেছে।

নেত্রকোনা সংবাদদাতা জানান, নেত্রকোনা সদরসহ জেলার কয়েক স্থানে থেকে পুলিশ জেলা বিএনপির সহসভাপতিসহ ১২ নেতাকর্মীকে আটক করেছে। নির্বাচনী প্রচারণা শুরুর পর গত তিন দিনে কোনো কারণ ছাড়াই বিএনপির ১২ নেতাকর্মীকে আটক করায় দলীয় নেতাকর্মীদের মধ্যে আতঙ্ক বিরাজ করছে।

জানা যায়, গত সোমবার রাতে পুলিশ সীমান্তবর্তী দুর্গাপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে জেলা বিএনপির সহসভাপতি, দুর্গাপুর উপজেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ইমাম হাসান ওরফে আবু চাঁন, উপজেলা বিএনপির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান ও সাংগঠনিক সম্পাদক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন আসাদ, দুর্গাপুর উপজেলা ছাত্রদলের সদস্য ফয়সাল আহমেদ দুর্জয়, জাহাঙ্গীর ও সাজ্জাদকে আটক করেছে।

অপর দিকে নেত্রকোনা মডেল থানা পুলিশ গত শনিবার রাতে বিভিন্ন স্থান থেকে কৃষক দলের সহসাংগঠনিক সম্পাদক শাহীনুর রহমান শাকিল, চল্লিশা ইউনিয়ন বিএনপির সহসভাপতি ইসলাম উদ্দিন, সদস্য বাবুল মিয়া, কাইলাটী ইউনিয়ন বিএনপি সদস্য বাবুল ডাক্তার, রৌহা ইউনিয়ন বিএনপির সদস্য জুয়েল মিয়া ও লক্ষ্মীগঞ্জ ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতি রফিকুল ইসলাম বাবুলকে আটক করেছে।

লোহাগাড়া (চট্টগ্রাম) সংবাদদাতা জানান, লোহাগাড়ায় ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী মাওলানা শামসুল ইসলামের ৩ নির্বাচনী কর্মীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত সোমবার রাতে আমিরাবাদ সুখছড়ি রহমানিয়া মাদরাসার শিক্ষক মাওলানা শফিকুর রহমান, লোহাগাড়া সদর ইউনিয়নের ৮ নং ওয়ার্ড হাজীপাড়ার মো: নাজিম উদ্দীন ও পুটিবিলা ইউনিয়নের ইয়াছিন আরাফাতকে গ্রেফতার করা হয়।
এদিকে গ্রেফতারদের নিজেদের নির্বাচনী কর্মী উল্লেখ করে অবিলম্বে এ ধরনের পুলিশি হয়রানি বন্ধ করে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে সংবাদপত্রে বিবৃতি দিয়েছেন ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থীর চিফ এজেন্ট, বিশ দলীয় জোটের চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলার যুগ্ম আহ্বায়ক ও জেলা জামায়াতের আমির অধ্যাপক জাফর সাদেক। বিবৃতিতে তিনি বলেন, ধানের শীষের পোস্টার লাগানোর সময় পদুয়া ও আধুনগর থেকেও তাদের কয়েকজন কর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। নির্বাচনী কাজ করার সময় এভাবে গ্রেফতার করে জনমনে ভীতি সঞ্চার করা হয়

সর্বশেষ