শিরোনাম

রোহিঙ্গাদের জন্য দুই নির্দেশনা পুলিশ সদর দপ্তর

সর্বশেষ আপডেটঃ ০২:০৩:১৯ পূর্বাহ্ণ - ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ১৬১

মিয়ানমারের সেনাবাহিনীর নির্মম নির্যাতনে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের জন্য দুই নির্দেশনা জারি করেছে পুলিশ সদর দপ্তর। আজ শনিবার এ নির্দেশনা জারি করা হয়। রোহিঙ্গাদের গাড়িতে তুলতে এবং বাড়ি ভাড়া না দিতে নিষেধ করেছে পুলিশ।

সূত্র জানায়, পুলিশের পক্ষ থেকে শরণার্থী হিসেবে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের বাড়ি ভাড়া না দিতে বলেছে। একইভাবে কক্সবাজারে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের পরিবহনে না তুলতেও গাড়ি মালিক-শ্রমিকদের বারণ করা হয়েছে। ব্যাপকহারে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের ছড়িয়ে পড়ার খবর আসার প্রেক্ষাপটে এ নির্দেশনা জারি করা হয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়।

নির্দেশনায় বলা হয়, সরকার রোহিঙ্গাদের জন্য নির্দিষ্ট স্থানে বাসস্থান-খাওয়া এবং চিকিৎসাসহ প্রয়োজনী সব ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। তারা নিজ দেশে প্রত্যাবর্তন না করা পর্যন্ত নির্দিষ্ট ক্যাম্পেই অবস্থান করবেন। রোহিঙ্গাদের অবস্থান কক্সবাজারে নির্দিষ্ট শরণার্থী শিবিরে সীমাবদ্ধ রাখা হবে বলে জানায় পুলিশ। তারা ক্যাম্পের বাইরে তাদের আত্মীয়-স্বজন অথবা পরিচিত ব্যক্তিদের বাড়িতে অবস্থান-আশ্রয় গ্রহণ বা এক স্থান থেকে অন্য স্থানে গমনাগমন করতে পারবেন না। তাদের নির্দিষ্ট ক্যাম্পের বাইরে কেউ যেন বাসা-বাড়ি ভাড়া না দেয়।

সড়ক, রেল ও নৌ পথ ব্যবহার করে এক স্থান থেকে অন্য স্থানে রোহিঙ্গাদের না নিতে পরিবহন চালক-শ্রমিকদের বলা হয়েছে। রোহিঙ্গা শরণার্থীদের কেউ অন্য কোথাও আশ্রয় দিয়েছে কিংবা চলাচল করছে, এমন খবর পেলে স্থানীয় প্রশাসনকে অবহিত করতে বলেছে পুলিশ। এরই মধ্যে চট্টগ্রামের বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে পড়েছে রোহিঙ্গারা। বেশ কয়েকজনকে ধরার পর উখিয়ায় ফেরত পাঠানো হয়েছে।

মধ্যাঞ্চলের মানিকগঞ্জ এবং পূর্বাঞ্চলের সুনামগঞ্জেও রোহিঙ্গা ধরা পড়েছে। এরই প্রেক্ষাপটে রোহিঙ্গাদের বাসা ভাড়া প্রদান বা চলাচলের ক্ষেত্রে নির্দেশনা জারি করেছে পুলিশ সদর দপ্তর।

২৪ আগস্ট থেকে রাখাইনে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নির্যাতন শুরু হলে এ পর্যন্ত বাংলাদেশে ৪ লাখের বেশি রোহিঙ্গা শরণার্থী প্রবেশ করেছে। পুরান আর নতুন করে আসা রোহিঙ্গার সংখ্যা বাংলাদেশে এখন প্রায় ১০ লাখ।

সর্বশেষ