শিরোনাম

ময়মনসিংহ সংরক্ষিত নারী আসনে আলোচনায় শীর্ষে নাজনীন আলম

সর্বশেষ আপডেটঃ ০২:০০:১০ পূর্বাহ্ণ - ০৮ জানুয়ারি ২০১৯ | ৬৬৭
মো. মেরাজ উদ্দিন বাপ্পী, ময়মনসিংহ : ময়মনসিংহ সংরক্ষিত নারী আসনে এমপি হিসেবে আলোচনার শীর্ষে রয়েছেন ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের সদস্য নাজনীন আলম।
 
একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন পরবর্তী সময়ে স্থানীয় রাজনৈতিক মহল, ভক্ত ও শুভাকাঙ্খীরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ বিভিন্নভাবে এমপি হিসেবে দেখতে চেয়েছেন ময়মনসিংহ জেলা আওয়ামীলীগের কার্যনির্বাহী সদস্য নাজনীন আলমকে। জেলা জুড়ে চায়ের আড্ডাতেও তাকে নিয়ে রয়েছে ব্যাপক আলোচনা।
 
স্থানীয়দের দাবি নাজনীন আলম ময়মনসিংহ -৩ (গৌরীপুর) আসনে এবার মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন। ২০১৪ সালে সিংহভাগ জনসমর্থন থাকা সত্বেও তিনি বিজয় বঞ্চিত হন। সাবেক প্রতিমন্ত্রী প্রয়াত ক্যাপঃ মুজিবুর রহমানের হয়রাণী-নির্যাতন ও অশ্লীল আচরণে জর্জরিত হয়ে নাজনীন আলম জনগণের সহানুভূতি অর্জন করেন । ক্যাপঃ মুজিবুর রহমানের মৃত্যুর পর উপ নির্বাচনে ব্যাপক জনপ্রিয়তা থাকার পরেও হাই কমান্ডের নির্দেশ মেনে দলীয় প্রার্থীকে সমর্থন দিয়ে নেতা কর্মীদের মন জয় করে নেন তিনি। এবারের নির্বাচনে তুমুল জনপ্রিয় হয়েও আবারও মনোনয়ন বঞ্চিত হন নাজনীন আলম ময়মনসিংহবাসীর আবেগ অনুভূতির কেন্দ্রবিন্দুতে এখন তিনি। এলাকাবাসীর দাবি, সংরক্ষিত নারী আসনে হলেও তাকে মনোনীত করা হোক।
 
নাজনীন আলমকে এমপি হিসেবে চেয়ে স্থানীয় নেতা কর্মীদের অনেকে জানান, দলীয় মনোনয়ন বঞ্চিত হয়েও তিনি মহাজোট প্রার্থীর জন্য মাঠে ছিলেন। তৃণমূলে তিনি সরকারের উন্নয়ন চিত্র ব্যাতিক্রমভাবে তুলে ধরেছেন।গৌরীপুরে দীর্ঘ বিশ বছর যাবৎ নাজনীন আলম ও তার স্বামী ফেরদৌস আলম জনসেবা ও গণসংযোগ করে যাচ্ছেন। তাদের গণসংযোগ ছিল চোখে পড়ার মত। সারা দেশে তিনি ছিলেন একজন আলোচিত প্রার্থী। জেলায় শীর্ষ জনপ্রিয় হওয়া সত্বেও বার বার তাকে বঞ্চিত করা হয়েছে। তাই নাজনীন আলমকে সংরক্ষিত আসনে মনোনিত করা এখন ময়মনসিংহবাসীর প্রাণের দাবী।
 
জেলা আওয়ামীলীগ নেত্রী নাজনীন আলম বলেন, দলকে আমরা শুধু দিয়েছি, একটি পয়সার বেনিফিট কোনদিন নেইনি। সর্বোচ্চ রাজনৈতিক অবস্থানে থেকেও বার বার বঞ্চিত হয়ে জনতাকে কাঁদিয়েছি। আশা করি দলীয় হাই কমান্ড সংরক্ষিত আসনে মনোনীত করে তাদের প্রতিশ্রুতি রাখবেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ বদলে গেছে। উন্নয়ন-অগ্রগতি আরো বেগবান করতে ময়মনসিংহবাসীর পাশে থেকে কাজ করে যেতে চাই। 
সর্বশেষ