শিরোনাম

মুকুল ৯৬ বন্ধুদের আয়োজনে ‘দুস্থ শিল্পি এবং অসহায় পরিবারের মাঝে ঈদ হাদিয়া বিতরণ’।

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৯:২৩:২৫ অপরাহ্ণ - ০১ জুন ২০২০ | ৫৩
মোঃমাসুদ রানা।
চীনের উহান থেকে উৎপত্তি করোনা ভাইরাসে বিশ্ব জুড়ে এখন মহামারী ধারন করেছে। আন্তর্জাতিক স্বাস্থ্য সংস্থা এই ভাইরাসটিকে এযাবৎ কালের শ্রেষ্ঠ মহামারি হিসেবে আক্ষ্যায়িত করেছে।
মহারীর বিস্তার রোধে দেশ জুড়ে চলছে চলমান লকডাউন,এতে করে কর্মহীন,অসহায় হয়ে পড়েছে সকল শ্রনীপেশার মানুষ। তাদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি বিপদে পড়েছে নিম্নবিত্ত ও মধ্যবিত্ত কর্মরত শ্রেনী পেশার অসহায় মানুষ গুলো।
করোনা ভাইরাস প্রার্দুভাবে সেই অসহায় মানুষদের পাশে  মানবিকতার এক নজির দৃষ্টান্ত দেখিয়েছে মুকুল ‘৯৬ এর বন্ধুরা। সামাজিক দায়বদ্ধতার কথা স্বরণ করে স্কুলের কর্মরত অসহায়  মানুষ গুলোর পাশে দাড়ানোর এখনই যেন মূখ্য সময়।
তারই ধরাবাহিকতায় আজ ময়মনসিংহ নগরীর প্রাচীন, ঐতিহ্যবাহী, সুনামধন্য মুকুল নিকেতন স্কুলের এসএসসি ৯৬  এর কিছু শিক্ষার্থীরা ২য় ধাপে তাদের স্কুলের সকল সংস্কৃতিক কর্মীদের জন্য ঈদ উপহার সহ নগদ অর্থ প্রদানের মাধ্যম  মানবতার আরও একটি দৃষ্ঠান্ত স্থাপন করেছে।
নগরীর মুকুল নিকেতন স্কুল প্রাঙ্গণে ২য় ধাপের এ কার্যক্রমে সাংস্কৃতিক অসহায় হয়ে পড়া কর্মীসহ প্রায় ৭০টি দুস্থ ও অসহায়দের মাঝে ঈদের বিশেষ উপহার খাদ্য সামগ্রী বিতরন করা হয়। এ সময় উপহার সামগ্রী তুলে দেন আমাদের ময়মনসিংহের গর্ব ও অহংকার লাখো ছাত্র/ছাএীদের পথপ্রদর্শক রেক্টর আমীর আহাম্মেদ চৌধুরী রতন স্যার।
রেক্টর আমীর আহাম্মেদ চৌধুরী রতন স্যার বলেন, এতো বছর কেটে যাবার পরও ৯৬ ব্যাচের বন্ধুরা তাদের স্কুলটিকে মনে ধারণ করে রেখেছে। শিক্ষক হিসেবে আমাদের সকলের এটি আমাদের স্কুলের জন্য একটি বিশাল পাওয়া। দেশের এই সংকট কালে অসহায় মানুষদের পাশে দাড়িয়ে তারা প্রমান করলো যে, লেখাপড়া করে সত্যিই তাদের ভিতর মনুষ্যত্বের ভাবটা প্রসারিত হয়ে উঠেছে।
রেক্টর আরও বলেন,আমাকে তারা হতাশ করেনি, তাদের কর্মের মাধ্যমে তারা আমাকে তথা আমার স্কুলেকে গর্বিত করেছে ।তাই আমি তাদের উজ্জল ভবিষ্যত কামনা করছি, সেই সাথে তারা যেন দেশ ও জাতির কল্যাণে সবসময় ও ভবিষ্যতেও এই সহায়তা কার্যক্রম অব্যাহত রাখতে পারে সে আশাই করি।
মুকুল ৯৬ ব্যাচ সংগঠনের অন্যতম উদ্যেক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা রাহুল রাইয়ান বলেন,  দেশের এই ক্রান্তি লগ্নে আমরা কিছু সংখ্যক বন্ধু মিলে যে কাজ গুলি করে যাচ্ছি তা দেশ ও  দশের সার্থে।
এই দুর্যোগকালীন সময়ে আমরা সবাই এগিয়ে আসি অসহায় সাধারন মানুষের পাশে। রাহুল রাইয়ান সকল বন্ধুকে ধন্যবাদ জানান তার পাশে থেকে এই মহতি কাজ কে এগিয়ে নেয়ার জন্য।ভবিষ্যতেও মুকুর ৯৬ এর বন্ধুরা অসহায় মানুষের পাশে থাকবেন বলে আশা করছেন।
খাদ্য সামগ্রী বিতরণে আরও উপস্থিত ছিলেন মুকুল নিকেতন স্কুলের প্রধান শিক্ষক শামছুল আলম,সিনিয়র শিক্ষক আব্দুর রাজ্জাক, যাদব দাস ও মঞ্জিত সরকার সহ মুকুল ৯৬ ব্যাচ এর  অন্যতম উদ্যেক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা রাহুল রাইয়ান সহ  মনিরুজ্জামান জুয়েল, আমিনুল ইয়ালাম, মুনিম হাসান পলাশ, সাগর তালুকদার, খুরশিদ আহমেদ তুনিম, খাইরুল ইসলাম, কৌশিক সরকার, সুমন সরকার, জাকির হোসেন জনি, দিপু, বাবন সাহা, ফয়সাল, মির আবুহেনা।
উপহার সামগ্রীর মধ্যে ছিলো, চাল, ডাল, তেল, চিনি, লবন, আলু, পেয়াজ, সেমাই। উপরোক্ত কর্মসূচীর ছাড়াও স্কুলের বাইরেও আরও কিছু এলাকায় অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রীসহ নগদ অর্থ প্রদান করেছে মুকুল ৯৬ ব্যাচ এর বেশ কয়েকজন বন্ধুরা।
মুকুল ৯৬ ব্যাচ এর উদ্যোক্তা ও প্রতিষ্ঠাতা সকলের কাছে দোয়া কামনা চান, তারা সকলের উদ্দেশ্যে বলেন,বর্তমানে চলমান পরিস্থিতি ও ভবিষ্যত্যেও আমরা সকল বন্ধুরা মিলে এ কার্যক্রম  অব্যাহত রাখার চেষ্টা করবো।
সকলেই সরকারী নির্দেশনা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন। তবেই আমরা খুব দ্রুই এই মহামারী সংকট কাটিয়ে উঠতে সক্ষম হব বরে আশা করছি।
সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর