শিরোনাম

মিতুর ছিল একাধিক ‘পরকীয়া’ প্রেমিক

সর্বশেষ আপডেটঃ ১০:৩০:১৩ অপরাহ্ণ - ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ৯৬

চট্টগ্রামে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করা চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশ। এরপরই বিভিন্ন মাধ্যমে গুঞ্জন ওঠে- স্ত্রীর একাধিক পুরুষের সঙ্গে পরকীয়া সম্পর্কের কারণেই এমনটি করেছেন আকাশ। কিন্তু আকাশের সঙ্গে স্ত্রী তানজিলা হক মিতুর সংসার করার কোনও ইচ্ছেই ছিল না। শুধুমাত্র ভালোবাসার কারণে তাকে ডিভোর্সও দিতে পারছিলেন না। গ্রেফতারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে এমনই স্বীকারোক্তি দিয়েছেন মিতু।

জিজ্ঞাসাবাদে একাধিখ যুবকের সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্কের বিষয়টি স্বীকার করলেও অনেক গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে যান মিতু। চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো: মিজানুর রহমান গতকাল শুক্রবার সকালে এ বিষয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এমন মন্তব্য করেন।

আর নিহত আকাশের মা জোবেদা খানম বাদী হয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে তানজিলা হক মিতু, তার বাবা-মা, ভাইবোন এবং দুই প্রেমিকসহ সাত ৭ জনের বিরুদ্ধে নগরীর চান্দগাঁও থানায় আত্মহত্যায় প্ররোচণার অভিযোগে মামলা করেছেন। মাহবুব এবং প্যাটেল নামে মিতুর দুই পরকীয়া প্রেমিককেও মামলায় আসামি করা হয়।

অতিরিক্ত উপপুলিশ কমিশনার (উত্তর) মো: মিজানুর রহমান বলেন, ডা: আকাশের আত্মহত্যায় তার ফেসবুক আইডিতে স্ত্রীকে জড়িয়ে স্ট্যাটাস এবং আকাশের পরিবারের মৌখিক অভিযোগের প্রেক্ষিতে মিতুকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আকাশের আত্মহত্যায় মিতুর কোনো বন্ধুর প্ররোচনা আছে কি না তাও খতিয়ে দেখবে পুলিশ।

যদি প্ররোচণার ব্যাপারে সুস্পষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে তাদের বিরুদ্ধেও আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

গত বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১১টায় চট্টগ্রাম নগরীর কোতোয়ালি থানার নন্দনকানন এলাকার তার খালতো ভাইয়ের বাসা থেকে সিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিট মিতুকে গ্রেফতার করে।

কাউন্টার টেরোরিজম ইউনিটের প্রধান উপপুলিশ কমিশনার মোহাম্মদ শহীদুল্লাহ জানান, পরকীয়া ও স্বামীর সাথে দাম্পত্য কলহ নিয়ে মিতু কিছু কিছু বিষয় স্বীকার করেছেন। আকাশের ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি পুলিশ জব্দ করেছে।

তবে বৃহস্পতিবার ভোর থেকে আকাশ তার ফেসবুকে স্ত্রী তানজিলা হক চৌধুরী মিতুর বিরুদ্ধে পরকীয়ার অভিযোগ ও বিভিন্ন ছবি সংবলিত যে স্ট্যাটাস দিয়েছিলেন সেটি ডিলিট করে দেয়া হয়।

গত বৃহস্পতিবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল ৬টার দিকে চট্টগ্রাম নগরীর চান্দগাঁও আবাসিক এলাকার দুই নম্বর সড়কের ২০ নম্বর বাসা থেকে চিকিৎসক মোস্তফা মোরশেদ আকাশের (৩৩) লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। চন্দনাইশ উপজেলার বরকল ইউনিয়নের বাংলাবাজার এলাকার মৃত আব্দুর সবুরের ছেলে আকাশ চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের তরুণ চিকিৎসক ছিলেন।

মামলা সূত্রে জানা যায়, দীর্ঘ দিন প্রেম করার পর একই পেশায় পড়ুয়া তানজিলা হক চৌধুরী মিতুকে বিয়ে করেছিলেন আকাশ। কিন্তু বিয়ের আগ থেকে একাধিক যুবকের সাথে প্রেমের সম্পর্ক থাকার কথা জেনেও শুধু মান সম্মানের কথা ভেবে আকাশ তাকে বিয়ে করেন। মৃত্যুর আগে আকাশের দেয়া ফেসবুক স্ট্যাটাসে এসব কথা উঠে আসে।

সর্বশেষ