শিরোনাম

ভালুকায় বিদ্যালয়ের জমি দখলের অভিযোগ

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৭:৪৯:৩৭ অপরাহ্ণ - ২৪ জুন ২০১৯ | ৩৯

ময়মনসিংহের ভালুকা উপজেলার ২২নং নিশিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বি.আর.এস ৪০নং দাগের প্রায় ত্রিশ লক্ষ টাকার ৩০শতাংশ জমি স্থানীয় প্রভাবশালী ব্যক্তিরা অবৈধ ভাবে দখল করে নিয়েছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলার ২২নং নিশিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৩০ শতাংশ জমি স্থানীয় প্রভাবশালী লোকজন দীর্ঘদিন ধরে দখল করে রেখেছেন। ওই জমির মধ্যে দোকানঘর ও বসতবাড়ি নির্মাণ করেছে ওই গ্রামের লক্ষন চন্দ্র সরকার ও বাদল চন্দ্র সরকার। কিন্তু বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে কোন প্রকার বাধা দিলে বা তাদের জমি থেকে চলে যেতে বললে উল্টো বিদ্যালয়ের লোকজনকে বিভিন্ন ধরণের হুমকি প্রদর্শণ করে।

সরজমিনে গেলে দেখা যায়, বিদ্যালয়ের মাঠের ভিতরে দোকানঘর ও বসতবাড়ি নির্মাণ করা হয়েছে। যার ফলে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীসহ এলাকার ছেলে মেয়েদের একমাত্র খেলার মাঠটি খেলাধুলার অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। এতে এলাকায় চরম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। কিন্তু প্রভাবশালীদের ভয়ে কেউ মুখ খুলতে চাচ্ছে না।

স্থানীয় শাহাদাত হোসেন শাহিন জানান, আমরা জন্মের পর থেকেই দেখছি এ জমি স্কুলের, কিন্তু হঠাৎ করেই এ জমি দখলের চেষ্টা করায় আমারা ক্ষুব্ধ, আমরা এলাকাবাসী চাই সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে এটার একটা সুরাহা হবে।

২২নং নিশিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাশিদা বেগম জানান, লক্ষন চন্দ্র সরকার ও বাদল চন্দ্র সরকারকে স্কুলের পক্ষ থেকে নির্মাণ কাজে বাধা দিলে তারা তা না মেনে দোকানঘর ও বসতবাড়ি নির্মাণ করেছে। এ বিষয়ে আদালতে মামলা হলে স্কুল মামলার ডিগ্রি পায়। কিন্তু তারপরও তারা এ জমির দখল ছাড়ছেন না।

২২নং নিশিন্দা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মানিক জানান, ব্রিটিশ আমলে এই স্কুলের জন্য ৫২শতাংশ জমি জৈনক শ্রী গনেশ মন্ডল ওয়াকফে করে দেন। তার পর থেকেই এ জমি স্কুলের দখলে রয়েছে। স্কুলের জমির পাশেই সরকারী ৩২শতাংশ জমি বি.আর.এস. রেকর্ড মূলে আমাদের স্কুল মালিক হয়। কিন্তু বর্তমান সময়ে জমির দাম বেড়ে যাওয়ায় লক্ষন চন্দ্র সরকার ও বাদল চন্দ্র সরকার এই জমি দখলের পায়তারা চালায়। আমি চাই সরকারের এ সম্পদ অতি দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রশাসনের হস্থক্ষেপে উদ্ধার হবে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাসুদ কামাল জানান, এ ব্যাপারে আমি কোন অভিযোগ পাইনি, তবে অভিযোগ পেলে তদন্ত করে আইনি পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

সর্বশেষ