শিরোনাম

ভারত পেল জয়, বাংলাদেশ পেল লিটন-মুশফিকের দারুণ ব্যাটিং

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৩:০২:৩৩ পূর্বাহ্ণ - ২৯ মে ২০১৯ | ৫০

টার্গেট ৩৬০ রান। বিশাল লক্ষ্য। এতো বড় রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড নেই বাংলাদেশের। তবে ঠিকই চ্যালেঞ্জ নিতে চেয়েছে দল। ব্যাটিং অনুশীলনের চ্যালেঞ্জ! প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতই জিতল, তাও বেশ বড়ো ব্যবধানে। আর ৯৫ রানে হারা ম্যাচে বাংলাদেশ যা করলো তার নাম ব্যাটিং অনুশীলন। ম্যাচে জেতার কাজটা জমা রইলো বড় আসরের জন্য!

প্রস্তুতি ম্যাচকে বলা হয় আসলেই ম্যাচের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে নেয়া। তো সেই কাজ ভালোই সারলেন লিটন দাস ও মুশফিক রহিম। বড়ো রানের ম্যাচে দুজনেই হাফ সেঞ্চুরি পেলেন। লিটন করলেন ১০ বাউন্ডারিতে ৯০ বলে ৭৩ রান। মুশফিক ফেরেন ৯৪ বলে নার্ভাস ৯০ রান করে।

তাদের ব্যাটিংয়েই লড়াইয়ের পথ খুঁজে নিয়েছিল টাইগাররা। তৃতীয় উইকেট জুটিতে লিটন ও মুশফিক যোগ করেন ১২০ রান। মনে হচ্ছিল তিনশ ছাড়ানো স্কোর গড়বে টাইগাররা। কিন্তু কুলদ্বীপ যাদব ও যুবেন্দ্র চাহালের বোলিংয়ে সব শেষ! স্পিন বল খেলতে বেগ পেল দল।

লিটন-মুশফিক ছাড়াও সৌম্য সরকারের ব্যাট থেকে আসে ২৫ রান। মেহেদী হাসান মিরাজ অপরাজিত ২৭। অন্য ব্যাটসম্যান হতাশই করেছেন! তারই পথ ধরে দল তামিম ইকবালকে ছাড়া খেলতে নামা দল ৪৯.৩ ওভারে ২৬৪ রান তুলে অলআউট!

মঙ্গলবার এর আগে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে করে ৩৫৯ রান। কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে শতরান করেন লোকেশ রাহুল ও মহেন্দ্র সিং ধোনি।

শুরুতে বল হাতে দাপট দেখালেও শেষটা ভাল হয়নি টাইগার বোলারদের। রাহুল ও ধোনি দৃশ্যপট পাল্টে দেন। ১০২ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারানো দলটাই রান পাহাড়ে উঠে যায়। গড়েন ১৬৪ রানে জুটি। টাইগার বোলারদের অসহায় করে ৪০ বলে পঞ্চাশ করেন ধোনি।
অন্যপ্রান্তে চলতে থাকে রাহুলের দাপট। ৪৫ বলে পঞ্চাশ তুলে নেন তিনি। এরপর ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি করেন ৯৪ বলে। ৯৯ বলে ১০৮ রান করে আউট রাহুল। ১২ চার ও চার ছক্কায় এই ইনিংস গড়েন তিনি। ভাঙে রাহুল-ধোনির ১৬৪ রানের জুটি। ধোনি বিশ্বকাপ লড়াইয়ের আগে তুলে নেন শতরান। ৭৮ বলে ১১৩ রানে ফেরেন তিনি।

রুবেল হোসেন শিকার করেন দুই উইকেট। একটি করে উইকেট নিয়েছেন বাংলাদেশের পেসার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মুস্তাফিজুর রহমান। চোট কাটিয়ে নামা সাকিব আল হাসান ৬ ওভারে ৫৮ রানে নেন ২ উইকেট। সাব্বির রহমান ৩০ শিকার করেন ১ উইকেট।

আগের ম্যাচেই হার দেখেছিল ভারত। নিউজিল্যান্ডের কাছে পরাজয়ের ধাক্কা সামলে বিশ্বকাপের আগে পথে ফিরল বিরাট কোহলির দল। বড় ব্যবধানে হারলেও বাংলাদেশের প্রাপ্তিটাই মন্দ নয়। মুশফিক-লিটনের ব্যাটিংয়ে আত্মবিশ্বাস নিয়েই বিশ্বকাপের লড়াইয়ে ২ জুন টাইগাররা মুখোমুখি হবে দক্ষিণ আফ্রিকার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ভারত: ৩৫৯/৭ (রোহিত ১৯, ধাওয়ান ১, কোহলি ৪৭, রাহুল ১০৮, ধোনি ১১৩, পান্ডিয়া ২১, কার্তিক ৭*, জাদেজা ১১*; মুস্তাফিজ ১/৪৩, মাশরাফি ০/২৩, সাইফ ১/২৭, রুবেল ২/৬২, আবু জায়েদ ০/৪১, সাকিব ২/৫৮, মিরাজ ০/৪০, মোসাদ্দেক ০/৩২, সাব্বির ১/৩০)

বাংলাদেশ: ৪৯.৩ ওভারে ২৬৪/১০ (লিটন ৭৩, সৌম্য ২৫, সাকিব ০, মুশফিক ৯০, মিঠুন ০, মাহমুদউল্লাহ ৯, সাব্বির ৭, মোসাদ্দেক ০, সাইফউদ্দিন ১৮, মিরাজ ২৭, রুবেল ০*; বুমরাহ ২/২৫, কুলদীপ ৩/৪৭, ৩/৫৫, জাদেজা ১/৪০)

ফল: ভারত ৯৫ রানে জয়ী

টার্গেট ৩৬০ রান। বিশাল লক্ষ্য। এতো বড় রান তাড়া করে জয়ের রেকর্ড নেই বাংলাদেশের। তবে ঠিকই চ্যালেঞ্জ নিতে চেয়েছে দল। ব্যাটিং অনুশীলনের চ্যালেঞ্জ! প্রস্তুতি ম্যাচে ভারতই জিতল, তাও বেশ বড়ো ব্যবধানে। আর ৯৫ রানে হারা ম্যাচে বাংলাদেশ যা করলো তার নাম ব্যাটিং অনুশীলন। ম্যাচে জেতার কাজটা জমা রইলো বড় আসরের জন্য!

প্রস্তুতি ম্যাচকে বলা হয় আসলেই ম্যাচের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করে নেয়া। তো সেই কাজ ভালোই সারলেন লিটন দাস ও মুশফিক রহিম। বড়ো রানের ম্যাচে দুজনেই হাফ সেঞ্চুরি পেলেন। লিটন করলেন ১০ বাউন্ডারিতে ৯০ বলে ৭৩ রান। মুশফিক ফেরেন ৯৪ বলে নার্ভাস ৯০ রান করে।

তাদের ব্যাটিংয়েই লড়াইয়ের পথ খুঁজে নিয়েছিল টাইগাররা। তৃতীয় উইকেট জুটিতে লিটন ও মুশফিক যোগ করেন ১২০ রান। মনে হচ্ছিল তিনশ ছাড়ানো স্কোর গড়বে টাইগাররা। কিন্তু কুলদ্বীপ যাদব ও যুবেন্দ্র চাহালের বোলিংয়ে সব শেষ! স্পিন বল খেলতে বেগ পেল দল।

লিটন-মুশফিক ছাড়াও সৌম্য সরকারের ব্যাট থেকে আসে ২৫ রান। মেহেদী হাসান মিরাজ অপরাজিত ২৭। অন্য ব্যাটসম্যান হতাশই করেছেন! তারই পথ ধরে দল তামিম ইকবালকে ছাড়া খেলতে নামা দল ৪৯.৩ ওভারে ২৬৪ রান তুলে অলআউট!

মঙ্গলবার এর আগে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশের বিপক্ষে ভারত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে করে ৩৫৯ রান। কার্ডিফের সোফিয়া গার্ডেনে শতরান করেন লোকেশ রাহুল ও মহেন্দ্র সিং ধোনি।

শুরুতে বল হাতে দাপট দেখালেও শেষটা ভাল হয়নি টাইগার বোলারদের। রাহুল ও ধোনি দৃশ্যপট পাল্টে দেন। ১০২ রান তুলতেই ৪ উইকেট হারানো দলটাই রান পাহাড়ে উঠে যায়। গড়েন ১৬৪ রানে জুটি। টাইগার বোলারদের অসহায় করে ৪০ বলে পঞ্চাশ করেন ধোনি।
অন্যপ্রান্তে চলতে থাকে রাহুলের দাপট। ৪৫ বলে পঞ্চাশ তুলে নেন তিনি। এরপর ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান সেঞ্চুরি করেন ৯৪ বলে। ৯৯ বলে ১০৮ রান করে আউট রাহুল। ১২ চার ও চার ছক্কায় এই ইনিংস গড়েন তিনি। ভাঙে রাহুল-ধোনির ১৬৪ রানের জুটি। ধোনি বিশ্বকাপ লড়াইয়ের আগে তুলে নেন শতরান। ৭৮ বলে ১১৩ রানে ফেরেন তিনি।

রুবেল হোসেন শিকার করেন দুই উইকেট। একটি করে উইকেট নিয়েছেন বাংলাদেশের পেসার মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন ও মুস্তাফিজুর রহমান। চোট কাটিয়ে নামা সাকিব আল হাসান ৬ ওভারে ৫৮ রানে নেন ২ উইকেট। সাব্বির রহমান ৩০ শিকার করেন ১ উইকেট।

আগের ম্যাচেই হার দেখেছিল ভারত। নিউজিল্যান্ডের কাছে পরাজয়ের ধাক্কা সামলে বিশ্বকাপের আগে পথে ফিরল বিরাট কোহলির দল। বড় ব্যবধানে হারলেও বাংলাদেশের প্রাপ্তিটাই মন্দ নয়। মুশফিক-লিটনের ব্যাটিংয়ে আত্মবিশ্বাস নিয়েই বিশ্বকাপের লড়াইয়ে ২ জুন টাইগাররা মুখোমুখি হবে দক্ষিণ আফ্রিকার।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-

ভারত: ৩৫৯/৭ (রোহিত ১৯, ধাওয়ান ১, কোহলি ৪৭, রাহুল ১০৮, ধোনি ১১৩, পান্ডিয়া ২১, কার্তিক ৭*, জাদেজা ১১*; মুস্তাফিজ ১/৪৩, মাশরাফি ০/২৩, সাইফ ১/২৭, রুবেল ২/৬২, আবু জায়েদ ০/৪১, সাকিব ২/৫৮, মিরাজ ০/৪০, মোসাদ্দেক ০/৩২, সাব্বির ১/৩০)

বাংলাদেশ: ৪৯.৩ ওভারে ২৬৪/১০ (লিটন ৭৩, সৌম্য ২৫, সাকিব ০, মুশফিক ৯০, মিঠুন ০, মাহমুদউল্লাহ ৯, সাব্বির ৭, মোসাদ্দেক ০, সাইফউদ্দিন ১৮, মিরাজ ২৭, রুবেল ০*; বুমরাহ ২/২৫, কুলদীপ ৩/৪৭, ৩/৫৫, জাদেজা ১/৪০)

ফল: ভারত ৯৫ রানে জয়ী

সর্বশেষ