শিরোনাম

‘প্রথম আলো’ পত্রিকা- আমার সম্পূর্ণ বক্তব্য না ছেপে খণ্ডিত বক্তব্য ছেপেছে.!

সর্বশেষ আপডেটঃ ১১:৫১:০৮ অপরাহ্ণ - ২৮ মে ২০১৯ | ৪১৯

নিজস্ব প্রতিনিধি: ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন ইভিএম ব্যবহার নিয়ে ময়মনসিংহ জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি, এবি এম নুরুজ্জামান খোকন তার ব্যক্তিগত ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দেন, পরবর্তীতে স্ট্যাটাসের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়ার লিখিত দাবি জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগ। এ প্রসঙ্গে গত ২৬ মে প্রথম আলোতে একটি সংবাদ ছাপানো হয়, সেই সংবাদের বিপক্ষে প্রতিবাদ জানিয়ে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ সভাপতি, নুরুজ্জামান খোকন পুনরায় তার ফেইসবুকে আর একটি পোস্ট দিয়েছেন। পোস্টটি নিন্মে হুবহু তুলে ধরা হলো।

” প্রথম আলো ” পত্রিকা , আমার সম্পূর্ণ বক্তব্য না ছেপে খণ্ডিত বক্তব্য ছেপেছে …! অতএব নিউজটি বস্তুনিস্ট নয় —>>>

আমি বাংলাদেশ আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির অন্যতম সদস্য ও ময়মনসিংহ জেলা শাখার সভাপতি এবং জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এডভোকেট এ,বি,এম নূরুজ্জামান খোকন ‘ প্রথম আলো ‘ পত্রিকায় আমার খণ্ডিত বক্তব্য প্রকাশ করার জন্যে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি …!

আমাকে প্রশ্ন করা হয়েছিলো জেলা আওয়ামী লীগের চিঠির ব্যাপারে আপনার বক্তব্য কি …? আমি যা বলেছি তা হুবুহু দেয়া হলো —>>>>” আমি জেলা আওয়ামী লীগের নামে দেয়া চিঠিকে আমার প্রতি জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মোয়াজ্জেম সাহেবের রাজনৈতিক প্রতিহিংসার সৃষ্ট ফল হিসেবে দাবী করেছি । আমার নির্বাচনী এলাকা এবং উনার নির্বাচনী এলাকা একই বিধায় উনি দীর্ঘ দিন যাবত আমার সাথে রীতিমতো বিদ্দ্যেশ মূলক আচরন করে আসছেন । আমার ক্লীন ইমেজকে উনি রাজনৈতিক ভাবে ভয় পান ।

জেলা আওয়ামী লীগের কমিটিতে আমার নাম বাদ দেয়ার জন্যে উনি যে ন্যাকারজনক ভূমিকা পালন করেছেন তা জেলা এবং জাতীয় নেতাদের অনেকেই অবহিত আছেন । তা ছাড়া সম্পূর্ণ অনৈতিক ভাবে দীর্ঘ দিনের পরীক্ষিত এবং সাবেক ছাত্রনেতাদের বাদ দিয়ে হাইব্রিড এবং স্বাধীনতা বিরোধীদের কমিটিতে জায়গা করে দিয়ে তিনি নিজের আখের গুছিয়েছেন । আমি সেদিন প্রথম ব্যাক্তি উনার এই অনৈতিক আচরনের বিরুদ্ধে জাতীয় নেতাদের সাথে সাক্ষাত করে বিষয়টি অবহিত করেছিলাম ।

আমার পাশাপাশি সাবেক ত্যাগী ছাত্রনেতাদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে পরবর্তীতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ উনার দেয়া ১৪/১৫ জনকে বাদ দিয়ে জেলা কমিটি আমাদের শেষ আশ্রয়স্থল বিশ্ব বত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছে উপস্থাপন করেন । আমার প্রতি উনার মারমুখী জেদ ময়মনসিংহের সকলেই অবহিত আছেন ! বিগত জাতীয় নির্বাচনে উনি গফর গাও এবং ময়মনসিংহ সদর আসন থেকে মনোনয়ন চাইলে আমিও এই দুই আসনে মনোনয়ন চাই , এতে তিনি আরও ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন । বিগত জেলা পরিষদ নির্বাচনে জেলা সেচ্ছাসেবক লীগের সাধারন সম্পাদক ও মহিলা বিষয়ক সম্পাদককে সংগঠনের পক্ষ থেকে আমরা পারথী করলে উনি তার বিরুদ্ধে পালটা পারথী দেন ।

আমাদের সাধারন সম্পাদককে প্রত্যাহার করে মহিলা সম্পাদক কে নির্বাচনে নামালে তিনিও বেইমানী করে পাল্টা পারথী দিয়ে মাঠে ময়দানে নেমে পড়েন । কিন্তু তিনি সেচ্ছাসেবক লীগের পারথীর কাছে পরাজিত হন – এতেও তিনি আমার প্রতি ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেন…..! এই চিঠির ব্যাপারে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যকরী কমিটির অনেকেরই কাছে জিজ্ঞেস করেছি এই ব্যাপারে তারা কিছু জানেন কি না ? তারা বলেছেন জানেননা । জেলা আওয়ামী লীগের কোন মিটিং হয়নি , জেলা আওয়ামী লীগের সাধারন সম্পাদক মোয়াজ্জেম সাহেব নিজে যা ইচ্ছা তাই করেন …?

উনার বিরুদ্ধে বিভিন্ন রকম অভিযোগ রয়েছে যা জাতীয় নেতৃবৃন্দ অবহিত আছেন …! উনার স্বৈরাচারী এবং সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডে ময়মনসিংহে আওয়ামী লীগের ত্যাগী নেতা কর্মীদের বোবা কান্না থামানোর জন্যে, আমাদের প্রান প্রিয় নেত্রী বিশ্ব মানবতার মা , বিশ্ব রত্ন জননেত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি কামনা করছি .। ব্যাক্তিগত অভিজ্ঞতা নিয়ে Status ব্যাক্তিগত ব্যাপার , দলীয় নয় – সিটি নির্বাচনে কি হয়েছে , কারা করেছে তা ময়মনসিংহবাসী জানেন…।

— মোয়াজ্জেম সাহেব আমার প্রতি রাজনৈতিক প্রতিহিংসা পরায়ন হয়ে , পুরনো জেদ চরিতার্থ করার জন্যে, ঘোলা পানিতে মাছ স্বীকার করতে চাচ্ছেন মাত্র… ..!!! ” আমি এই কথা গুলোই প্রথম আলোর সাংবাদিকের কাছে বলেছিলাম …। আমার সম্পূর্ণ বক্তব্য প্রচার না করে খণ্ডিত বক্তব্য প্রচার করেছে প্রথম আলো কত্পক্ষ …— যা মোটেও গ্রহন যোগ্য নয় ……!!

সর্বশেষ