শিরোনাম

নগরবাসির সুরক্ষা ও জয়নুল উদ্যানে সৌন্দর্য বর্ধন বাঁধের ভাঙ্গণ পরিদর্শণে বিভাগীয় কমিশনার।

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:২১:১০ পূর্বাহ্ণ - ০৫ জুন ২০২০ | ৩২
মোঃ মাসুদ রানা:
ময়মনসিংহ নগরীর শিল্পাচার্য জয়নুল উদ্যান ঘেষে ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ে ময়মনসিংহ নগরীরক্ষা বাঁধের ২২টি স্থানে ভেঙ্গে গেছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ ও মুশলধারে বৃষ্টি হওয়ায় কারনে।
তথ্য সুএে জানা যায়, অতি নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী দিয়ে নির্মাণ এবং বাঁধের পাশে পানি নিষ্কাশনের প্রয়োজনীয় ড্রেন না থাকায় সম্প্রতি বয়ে যাওয়া প্রবল বৃষ্টিপাতে ৫টি স্থানে বাঁধের বিস্তীর্ণ অংশ ভেঙ্গে ব্রহ্মপূত্র নদের পাশে বিলিন হয়ে গেছে। ফলে নদের পাড়টি দৃষ্টিনন্দন, মনোরম পরিবেশে নানা জাতির বৃক্ষ সমৃদ্ধ সৌর্ন্দয্য মন্ডিত জয়নুল আবেদিন পার্কটির অস্তিত্ব এখন হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়েছে।( ৩রা জুন) বুধবার বিকেলে ভেঙ্গে যাওয়া বাঁধের বিভিন্ন অংশ ও সংস্কারের কাজ সরজমিনে পরিদর্শণে যান ময়মনসিংহের বিভাগীয় কমিশনার মোঃ কামরুল হাসান এনডিসি।
তিনি হেটে হেটে পর্যবেক্ষন করে সংস্কারে মানসম্পন্ন বালু, জিওটেক্স, ইট ও খোয়া ব্যবহার করা হচ্ছে কিনা তা পর্যবেক্ষণ করেন এবং মানসম্পন্ন ও সুষ্ঠুভাবে বাধের সংস্কারকাজ সমাপ্ত করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দিয়েছেন বিভাগীয় কমিশনার।এবং দ্রুত সংষ্কারের জন্য নির্দেশ দেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোঃ জাহাঙ্গীর আলম, ময়মনসিংহ সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ হাফিজুর রহমান, ময়মনসিংহ সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মোঃ রফিকুল ইসলাম , নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ জহুরুল হক, ময়মনসিংহ বিভাগীয় প্রেসক্লকারে সাধারণ সম্পাদক মোঃ নজরুল ইসলাম, নিউজ চ্যানেল জার্ণালিষ্ট এসোসিয়েশেন ময়মনসিংহ অঞ্চল সভাপতি মোঃ হারুনুর রশিদ প্রমূখ।
জরুরিভিত্তিতে এই ভেঙ্গে যাওয়া  বাধটি দ্রুত সংস্কারের পদক্ষেপ নেয়ার জন্য ময়মনসিংহের জেলা প্রশাসক মোঃ মিজানুর রহমান পানি উন্নয়ন বোর্ডের সাথে তড়িৎ যোগাযোগ করেন। যার প্রেক্ষিতে বাধটি দ্রুত সংস্কারের পদক্ষেন নেয় পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্তৃপক্ষ। বাধটির সংস্কার কাজের ব্যাপারে জেলা প্রশাসক প্রতিনিয়মিত মনিটরিং করছেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানান।
পানি উন্নয়ন বোর্ডে প্রকৌশলীরা জানান, নগরীর কাচারিঘাট থেকে জয়নুল উদ্যানে এবছর ৫টি স্থানের বিস্তীর্ণ অংশে প্রাকৃতিক দুর্যোগের কারনে ও বৃষ্টির পানিতে ভেঙ্গে গেছে। জুরুরি ভিত্তিতে ৭লাখ ৬৭ হাজার টাকার প্রকল্প তৈরি করা হয়েছে। তা ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স এম. রহমানের মাধ্যমে কাজ করানো হচ্ছে বলে জানান।
এছাড়া ২০১৯ সালে প্রবলবৃষ্টির পানিতে ময়মনসিংহ নগররক্ষা বাঁধের ১৮টি স্থানে ভেঙ্গে গিয়েছিলো। তা গত মার্চে দরপত্র আহবান করা হলে ৩৬ লাখ টাকার কাজও বাস্তবায়ন করছে ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান মেসার্স এম. রহমান।
ময়মনসিংহ জেলা নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার নূরুল আমিন কালাম জানান, ময়মনসিংহ নগররক্ষা বাঁধের ভেঙ্গে যাওয়া অংশ অবিলম্বে মানসম্পন্নভাবে সংস্কার কাজ সম্পন্ন করার জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট আহবান জানিয়েছেন।
সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর