শিরোনাম

জয়ের দেখা পেল মাহমুদউল্লাহর খুলনা টাইটান্স

সর্বশেষ আপডেটঃ ১১:৩২:১২ অপরাহ্ণ - ২৩ জানুয়ারি ২০১৯ | ২৯

বিপিএলে আজ লড়েছে পয়েন্ট টেবিলের তলানীর দুই দল। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের খুলনা টাইটান্স আর সোহেল তানভীরের সিলেট সিক্সার্স। এই ম্যাচে ২১ রানে সিলেটকে হারিয়েছে খুলনা। নিজেদের খেলা ৯ ম্যাচের সাতটিতেই হেরেছে খুলনা আর ৮ ম্যাচের ছয়টিতেই হারলো সিলেট।

খুলনার বিপক্ষে টস জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেয় সিলেট। নির্ধারিত ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে খুলনা টাইটান্স রান তোলে ১৭০ রান। জবাবে, ২০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে সিলেট তোলে ১৪৯ রান।

শুরুটা ভালো করেছিল খুলনা। ব্যাটিংয়ে নেমে খুলনার দুই ওপেনার ৪১ বলেই তুলে নেন ৭৩ রান। ব্যক্তিগত ৩৩ রানে ফেরেন জুনায়েদ সিদ্দীকি। তার ২৩ বলের ইনিংসে ছিল ৬টি চারের মার। ৩১ বলে চারটি চার আর দুটি ছক্কায় ব্রেন্ডন টেইলর করেন ৪৮ রান।তবে তিন নম্বরে নামা আল আমিন ফেরেন ২ রানে। একটি করে চার আর ছক্কায় ১৩ বলে ১৭ রান করেন নাজমুল হোসেন শান্ত।

অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (৩) আর আরিফুল হক (০) বিদায় নিলেও একপ্রান্তে দাঁড়িয়ে ব্যাট চালান ডেভিড উইসি। শেষ ওভারে বিদায় নেওয়ার আগে ডেভিড উইসি ২৫ বলে দুটি করে চার ও ছক্কায় করেন ৩৮ রান। মাঝে ইয়াসির শাহ ৮ রান করে ফেরেন। তাইজুল ইসলাম ৯ রানে অপরাজিত থাকেন।

সিলেটের অলোক কাপালি ৪ ওভারে ২২ রান দিয়ে তুলে নেন চারটি উইকেট। পাকিস্তানি পেসার মোহাম্মদ ইরফান ৪ ওভারে ৩৭ রান খরচায় কোনো উইকেট পাননি। ৪ ওভারে ২৬ রান দিয়ে দুটি উইকেট পান আরেক পাকিস্তানি স্পিনার মোহাম্মদ নওয়াজ। দলপতি সোহেল তানভীর ৩ ওভারে ২৮ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। একাদশে ফিরে নাসির হোসেন ১ ওভারেই খরচ করেন ১৯ রান, থাকেন উইকেটশূন্য। পেসার তাসকিন আহমেদ ৪ ওভারে ৩৫ রান দিয়ে তুলে নেন দুটি উইকেট।

১৭১ রানের টার্গেটে ব্যাটিংয়ে নেমে সিলেটের ওপেনার লিটন দাস ইনিংসের প্রথম বলেই বোল্ড হন। আরেক ওপেনার সাব্বির রহমানও সুবিধা করতে পারেনি, ১২ বলে এক চার, এক ছক্কায় করেন ১৩ রান। তিন নম্বরে নামা আফিফ হোসেন ২৪ বলে তিনটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ২৯ রান। অলোক কাপালি ১৬ বলে করেন ১১ রান। দলীয় ৫৬ রানেই সিলেট টপঅর্ডারের চার উইকেট হারিয়ে ফেলে।

এরপর জুটি গড়েন মোহাম্মদ নওয়াজ-নিকোলাস পুরান। ২১ বলে তিনটি চার আর একটি ছক্কায় ২৮ রান করে বিদায় নেন পুরান। তারপরও সিলেটকে আশা দেখাচ্ছিলেন মোহাম্মদ নওয়াজ। ১৯তম ওভারে বিদায় নেওয়ার আগে তিনি ৩৪ বলে দুটি চার আর চারটি ছক্কায় করেন ৫৪ রান। দলপতি সোহেল তানভীর ৫, জাকের আলি অপরাজিত ২*, নাসির হোসেন ০* রান করেন।

খুলনার তাইজুল ইসলাম ৪ ওভারে ৩২ রান দিয়ে পান তিনটি উইকেট। ডেভিড উইসি ৪ ওভারে ২৪ রানের বিনিময়ে তুলে নেন একটি উইকেট। দলপতি মাহমুদউল্লাহ ১ ওভারে ৯ রান দিয়ে কোনো উইকেট পাননি। পেসার সুবাশিষ রায় ৪ ওভারে ৪০ রান দিয়ে একটি উইকেট পান। পাকিস্তানি পেসার জুনায়েদ খান ৪ ওভারে ২৮ রান দিয়ে নেন একটি উইকেট। পাকিস্তানি স্পিনার ইয়াসির শাহ ৩ ওভারে ১৪ রান দিয়ে একটি উইকেট তুলে নেন।

সর্বশেষ