শিরোনাম

ঘাতক মাইক্রোবাস কেড়ে নিল দিন মজুর বাবা-মায়ের স্বপ্ন

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৪:১৯:১৮ অপরাহ্ণ - ১২ আগস্ট ২০১৮ | ১১৩

ময়মনসিংহের গৌরীপুরে ঘাতক মাইক্রোবাস কেড়ে নিল দিন মজুর বাবা-মায়ের স্বপ্ন। মাইক্রোবাসচাপায় সাদেকুল ইসলাম (২০) ও আরাফাত রহমান (১৮) নামে মোটর সাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছেন। নিহতরা হলেন, রিয়াতুল ইসলাম মামুন রাজগঞ্জ গ্রামের দিনমজুর ইন্তাজ আলীর সন্তান। সাদেকুল ইসলাম গ্রামের দিনমজুর সবিকুল ইসলামের বাবার বড় সন্তান।

লেতু মন্ডল উচ্চবিদ্যালয়ের শিক্ষক আমেনা বেগম চম্পা জানান, রিয়াতুল ইসলাম মামুন রাজগঞ্জ গ্রামের দিনমজুর ইন্তাজ আলীর ৩ মেয়ের পর এক ছেলে গরীবের ঘর আলো করা সন্তান। তাকে নিয়ে মা বাবার ছিল খুব আশা । আমার বাড়ির পাশেই স্কুল। প্রায় প্রতিদিনই মামুনের মায়ের সাথে দেখা হত। মামুন কি ঠিকমত স্কুলে আসে কি না ? মামুনের মায়ের একটা কথাই বলত, আম্মাজী আমার মামুন ঠিকমত পড়ছে তো? গরীব হলেও আপনার কাকা কোন আব্দারই অপুর্ণ রাখে না। আমিও উদহারণ দেই বড় হয়ে তোর আপাদের মত চাকরী করবি।

মামুন এসএসসি পাশ করার পর তার মা আসল দেখা আসে “আম্মাজী স্কুলে তো ফ্রি পড়াইছেন টাকা পয়সা লাগছে না, কলেজে কিভাবে খরচ চালাইব গৌরীপুর সরকারী কলেজে খরচ কম যাওয়ার ভাড়াও বেশী না ওখানে ভর্তি করিয়ে দেই।

গত পড়শু দিন মামুনের সাথে দেখা স্কুলের পাশে দোকানে বসে আছে। আমি পাশ দিয়ে যেতেই উঠে ছালাম দিল আমি বললাম স্কুল টাইমে এইখানে কি করিস বলল। ঈদে ফুটবল খেলা রাখছি বিবাহিত বনাম অবিবাহিত দৌড়াদৌড়ি করতেছি এখন এইখানে একটু বসলাম। আমি বললাম যা বাড়ির ভিতরে যা এখন কোন মেয়ে যদি অভিযোগ করে তোরা ইভটিজিং করছিস। তাহলে কিন্তু আমাকেই তোদের বিচার করতে হবে।

সাদেকুল স্কুলে লেখাপড়ায় ভাল ছিলনা। কিন্তু তারপরও এক নামে সবাই চিনতো ডান্সার সাদেকুল নামে। নায়ক দেবের কঠিন ডান্সগুলোও সে সহজে উঠিয়ে ফেলতো কিন্তু আফসোস আমি এ ধরনের গান স্কুলে অনুষ্ঠানে গ্রহণ করিনি। প্রতিবার এ ধরনের অনেক নাচ আমাকে করে দেখাতো কোনটা অনুষ্ঠানে চলে দেখার জন্য। শেষে মার্জিত কোন গানের নাচ হলে রাজি হতাম। মঞ্চ কাঁপিয়ে ফেলতো নেচে। তেমনি ছিল খেলাধুলায়, অভিনয়, নেতৃত্বে।এবার এস এস সি তে ফেল করল বললাম সাদেকুল কি অবস্থা! বলে ম্যাডাম ফেল তো করেছিই সবাই যদি একসাথে বকে এত কি সহ্য করা যায়। বুঝিয়ে বললাম বাপের দিকটাও তো দেখতে হবে এত কষ্ট করতাছে সন্তানের জন্যই তো। এরা আমার নিজ এলাকার বাচ্চা জন্ম থেকে দেখে দেখে বড় করেছি যার ফলে অন্য ছাত্রদের থেকে এদের প্রতি মায়াই থাকে অন্যরকম। স্কুলে না আসলে ধরে থেকে নিয়ে এসে ক্লাস করাই বলি দুরের বাচ্চারা এই স্কুলে মানুষ হয় তোরা কাছে দেখে স্কুলকে গুরুত্ব দেস না।

দুপুর আড়াইটার দিকে ওরা স্কুল থেকে কোয়াটার মাইল দুরে চরশ্রীরামপুর নামক স্থানে মোটর সাইকেলে যাচ্ছিল পিছন থেকে সি এন জি এসে ধাক্কার দিয়ে ফেলে দিলে মাইক্রোবাস ওদের উপর দিয়ে চলে যায়। একজন ঘটনাস্থলেই মারা যায়। অপরজন হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যায়।

১১আগষ্ট শনিবার স্কুলে অভিভাবকদের মতবিনিময় সভা ছিল সাথ সাথেই হাসপাতালে আসতে পারিনি ।পরে হাসপাতালে এসে একজনকে ওয়ার্ডে লাশ অবস্থায় একজনকে লাশঘরে মৃত অবস্থায় দেখতে পেলাম। এভাবে করুণ মৃত্যু মেনে নেওয়া যায় না আমরা শোকাহত।

গৌরীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আশিকুর রহমান জানান, বিকেলে চর শ্রীরামপুর এলাকায় একটি মাইক্রোবাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দিলে ঘটনাস্থলেই একজনের মৃত্যু হয়। গুরুতর আহত অপরজনকে উদ্ধার করে গৌরীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সর্বশেষ