শিরোনাম

খ্যাতিমান সাংবাদিক গোলাম সারওয়ার আর নেই

সর্বশেষ আপডেটঃ ১২:০৩:৩২ পূর্বাহ্ণ - ১৪ আগস্ট ২০১৮ | ৭৪

খ্যাতিমান সাংবাদিক ও সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আর নেই (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। তার বয়স হয়েছিল ৭৫ বছর।

সোমবার (১৩ আগস্ট) বাংলাদেশ সময় রাত ৯টা ২৫ মিনিটে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালের করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন।

এর আগে অবস্থার অবনতি হলে সোমবার বিকেল ৫টায় চিকিৎসাধীন সমকাল সম্পাদককে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

সমকালের নগর সম্পাদক শাহেদ চৌধুরী বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশ সময় রাত ৯টা ২৫ মিনিটে না ফেরার দেশে চলে গেছেন আমাদের সম্পাদক।

হৃদরোগের পাশাপাশি গোলাম সারওয়ার নিউমোনিয়া ও ফুসফুসের জটিলতায় ভুগছিলেন। উন্নত চিকিৎসার জন্য গত ৩ আগস্ট মধ্যরাতে তাকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে সিঙ্গাপুরে নেওয়া হয়।

পরদিন সকালে তাকে সিঙ্গাপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসার পর তার শারীরিক অবস্থার কিছুটা উন্নতিও হয়েছিল। তবে গত রোববার (১২ আগস্ট) হঠাৎ করে তার রক্তচাপ কমে যায়। কিডনিও স্বাভাবিকভাবে কাজ করছিল না। পরে সোমবার বিকেলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

গত ২৯ জুলাই মধ্যরাতে সম্পাদক পরিষদের সভাপতি গোলাম সারওয়ার রাজধানীর ল্যাবএইড হাসপাতালে ভর্তি হন।

১৯৪৩ সালে বরিশাল জেলার বানারীপাড়ায় জন্ম নেওয়া গোলাম সারওয়ারের লেখালেখির প্রতি আগ্রহ ছিল ছোটবেলা থেকেই। ১৯৬৩ সালে দৈনিক পয়গমের মাধ্যমে সাংবাদিকতায় প্রবেশ করেন তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলায় সম্মানসহ স্নাতকোত্তর ডিগ্রিধারী এই খ্যাতিমান সাংবাদিক ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ পর্যন্ত দৈনিক সংবাদে বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

মুক্তিযুদ্ধের পর বানারীপাড়া ইউনিয়ন ইনস্টিটিউশনে কিছুদিন প্রধান শিক্ষক পদেও নিয়োজিত ছিলেন একাত্তরের এই বীর মুক্তিযোদ্ধা। ১৯৭৩ সালে দৈনিক ইত্তেফাকের সিনিয়র সহ-সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন। ইত্তেফাকে ১৯৯৯ সাল পর্যন্ত প্রধান সহ-সম্পাদক, যুগ্ম-বার্তা সম্পাদক ও বার্তা সম্পাদক পদে কর্মরত ছিলেন গোলাম সারওয়ার।

ইত্তেফাকে দীর্ঘ দুই যুগ কর্মরত থাকার পর ১৯৯৯ সালে দৈনিক যুগান্তরের প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক হিসেবে যোগ দেন। ২০০৫ সালে প্রতিষ্ঠা করেন দৈনিক সমকাল।

সাংবাদিকতার পাশাপাশি গোলাম সারওয়ার লেখালেখিতেও সুনাম অর্জন করেছেন। তার প্রকাশিত গন্থের মধ্যে ছড়াগ্রন্থ ‘রঙিন বেলুন’ এবং প্রবন্ধ সংকলন ‘সম্পাদকের জবানবন্দি’, ‘অমিয় গরল’, ‘আমার যত কথা’ ও ‘স্বপ্ন বেঁচে থাক’ উল্লেখযোগ্য।

সাংবাদিকতায় অবদানের জন্য গোলাম সারওয়ার ২০১৪ সালে একুশে পদকে ভূষিত হন। ২০১৬ সালে কালচারাল জার্নালিস্টস ফোরাম অব বাংলাদেশ (সিজেএফবি) আজীবন সম্মাননা ছাড়াও  ২০১৭ সালে আতাউস সামাদ স্মারক ট্রাস্ট আজীবন সম্মাননা  পান তিনি।

গোলাম সারওয়ার সেন্সর বোর্ডের আপিল বিভাগের সদস্য ছিলেন। দায়িত্ব পালন করছিলেন বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের (পিআইবি) চেয়ারম্যান হিসেবে। একাধিকবার জাতীয় প্রেসক্লাবের জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন তিনি।

এদিকে বিশিষ্ট গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব ও সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে গভীর শোক জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

পৃথক শোক বার্তায় মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনার পাশাপাশি শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানানো হয়েছে।

সম্পাদক গোলাম সারওয়ারের মৃত্যুতে বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। পাশাপাশি তিনি শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদ্যসদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানিয়েছেন। তার মৃত্যুতে ইস্ট ওয়েস্ট মিডিয়া গ্রুপে শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

সর্বশেষ