শিরোনাম

ওরা কারা-?কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আবেগ’কে রাজনীতির ঢাল মনে করছে!- রকিব

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৮:০১:২৬ অপরাহ্ণ - ০২ আগস্ট ২০১৮ | ১২০

নিরাপদ সড়ক কে না চায়?
বাস চাপায় নিহত শিক্ষার্থীদের জন্য কার মন না কেঁদেছে?

নিরাপদ সড়ক আমরা সবাই চাই, নিহত শিক্ষার্থীদের জন্য যার বিবেক আছে তাদের প্রত্যকের মন কেঁদেছে! এমন মন্তব্য করে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি, মোঃ রকিবুক ইসলাম রকিব তার ফেসবুকে করা এক ষ্টেটাস পোস্ট করেন- নিচে তা হুবহু তলে ধরা হল।

স্কুল পড়ুয়া কোমলমতি শিক্ষার্থীদের আবেগ অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে তাদের যৌক্তিক দাবিগুলো ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের অহিংস আন্দোলনকে রাজপথে সহিংসতায় রূপ দেয়ার জন্য এদেশের অপেক্ষা করা তীর্থের কাকগুলো সুযোগ বুঝে ওদের স্বার্থ চরিতার্থ করার নিমিত্তেই বারবার আড়াল থেকে কলকাঠি নাড়ছে।

আজ ঐসব কুট কৌশলী ছদ্মবেশী স্বার্থান্বেষীরদল ছাত্র ছাত্রীদের ভুল বুঝিয়ে ভুল পথে পরিচালিত করতে ভীষণ তৎপরতা চালাচ্ছে।

এবার সাধারণ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা মনে করিয়ে দিতে চাইঃ
* তোমরা কারো ভাই,কারো বোন,কারোর পরম স্নেহের সন্তান।তোমরাই ভবিষ্যত,তোমরাই সত্যিকার আগামীর ‘বাংলাদেশ’।
* আর বাংলাদেশের সরকার তোমার, আমার, আমাদের বর্তমান অভিভাবক।
* তাই সরকার নিতান্ত অভিভাবক হিসেবে অত্যন্ত গুরুত্বের সাথে তোমাদের সকল দাবী দাওয়া মেনে নিয়েছে। আর এখন আমাদের উচিত হবে সরকারকে সেগুলো বাস্তবায়নের সময় ও সুযোগ করে দিয়ে নিজেদের যুক্তি,বুদ্ধি ও বিচক্ষণতার পরিচয় দেয়া।

আরো মনে রাখা বাঞ্ছনীয়- 
• উপযাজক হয়ে যারাই অতি উৎসাহী দায়িত্ব পালন করতে আসবে বা চাইবে মূলত তারাই রাজপথে #সরকার_বনাম_সাধারণ_শিক্ষার্থী টূর্নামেন্ট খেলায় সাধারণ ছাত্র ছাত্রীদের সরকারের বিপক্ষে উস্কে দেয়। বস্তুত ওরাই সরকারকে হার্ড লাইনে নিয়ে গিয়ে তবেই শেষে সাধারণ শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি আদায়ের আন্দোলনকে ব্যর্থতায় পর্যবসিত করে।

• সাম্প্রতিক সময়ের দু একটি আন্দোলনের দিকে একটু গভীর ভাবে পর্যবেক্ষণ করলেই সবকিছু সহজেই উপলব্ধি করতে পারা যায়।

• আর এটুকুও বুঝতে বাকি থাকে না যে অতিরঞ্জিত ও লাগামহীন আন্দোলনের জন্যে কি পরিণতি অপেক্ষা করে।

• আমার বিশ্বাস শিক্ষার্থীদের বুদ্ধিদীপ্ত মগজে সবকিছুই বিবেচ্য হবে।

আচ্ছা এবার কতগুলো উন্মুক্ত প্রশ্ন করি!দেখি যৌক্তিক উত্তরগুলো কি আসে!একটু দেখি কেমন-

• স্কুল পড়ুয়া কোমলমতি শিক্ষার্থীদের নিষ্পাপ মুখে এত নোংরা ভাষা তুলে কে দিলো?
• প্ল্যাকার্ড ব্যানার ফেস্টুনে এতসব নিষিদ্ধ শ্লোগান কারাই বা আড়াল থেকে লিখতে উৎসাহিত করলো?
• অহিংস আন্দোলনের রাজপথকে আজ কারা সহিংস করতে উৎসাহী দায়িত্ব পালন করলো?
• কারা স্নেহময়ী ছাত্র ছাত্রীদের আজকাল এতটাই উত্তেজিত ও হিংস্র করে তুলতে রাক্ষুসে ভূমিকা পালন করলো?
• আজ কারা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিরবচ্ছিন্ন একাডেমিক পাঠদান ব্যাহত করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে তালা ঝুলিয়ে দিতে স্বার্থপরের মতো উদ্ধত হলো?

কারা? ওরা কারা? ওসব কারা?
যারা সরকারকে শিক্ষার্থীদের অভিভাবক মানতে অস্বীকৃতি জানিয়ে শিক্ষার্থীদের দিয়ে নিতান্ত নির্লজ্জের মতো রাজপথে ঘৃণ্য রাজনীতিতে মেতে উঠলো!
কার্যত ওরা কারা!

#কার্যত_ওরাই_তারা 
যারা সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিষ্পাপ আবেগকে পুঁজি করে নিজেদের নীল এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চায়। শিক্ষার্থীদের ওরা সর্বত্র ঢাল হিসেবে ব্যবহার করে।ওরা সাধারণ শিক্ষার্থীদের কখনোই নিজেদের সন্তান, স্বজন বা ভাই হিসেবে জ্ঞান করে না। ওরা নিজেদের স্বার্থসিদ্ধির জন্য শিক্ষার্থীদের দিয়ে নিজেদের স্বার্থ চরিতার্থ করে। আর ওরাই শিক্ষার্থীদের নিয়ে অহিংস রাজপথে সহিংস রাজনীতি করে।

এবার বিঃদ্রঃ টেনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে কিছু কথা বলবোঃ

• আজ যে প্ল্যাকার্ড বা ব্যানারটা হাতে নিয়ে তুমি দাঁড়িয়ে আছো তুমি কি সেটা ভালো করে পড়েছো পাশাপাশি সেটার প্রকৃত মানেটা সম্পর্কে কি তুমি যথেষ্ট বিজ্ঞ?
• আজ যে শ্লোগান তুলে তুমি সরকারকে ৫২’র ভাষা আন্দোলনের কথা স্মরণ করিয়ে দিতে চাচ্ছো, তুমি কি ভাষা আন্দোলনে ব্যবহৃত শ্লোগান বা ভাষা আন্দোলনকারীদের ভাষা প্রয়োগ সম্পর্কে নূন্যতম ধারনা রাখো?
• তোমার আবেগ অনুভূতির প্রকাশভঙ্গি কি কোন ভাবে বাঙালির ঐসব মহান ভাষা সৈনিকদের আবেগের কাছেধারেও পৌঁছে?
• তোমরা কি সত্যিই বাঙালির দাবী আদায়ের ঐ সংগ্রামী রাজপথের প্রকৃত ইতিহাসটা জানো!নাকি না জেনেই অনর্থক কারো স্বার্থান্বেষী উস্কানিতে রাজপথে নিষিদ্ধ শ্লোগান তুলে নিজের নিষ্পাপ মুখকে কলুষিত করে অনর্থক সরকারের বিরুদ্ধাচরণ করছো?
• নাকি নিজেদের আজ খুব বেশি বাঁধনহারা ভেবে বসেছো?তুমিও কি ব‌ই খাতা কলম বা স্কুল কলেজের নিত্য শ্রেণীপাঠ ছেড়ে রাজপথে আজ খুব বেশি রাজনৈতিক হতে চাচ্ছো?
যদি নিজেকে রাজনৈতিক‌ই ভেবে ফেলো তবে বর্ণচোরার মতো নয় বরং ঘোষণা দিয়েই নামো…..!তোমাকে স্বাগত, সাধুবাদ জানাবো!

তবুও চাইবো না তুমি পুতুল হ‌ও,তবুও চাইনা 
তুমি কারো রাক্ষুসে স্বার্থের সামান্য শূকর হ‌ও!
আমি চাই তুমি আমার,আমাদের তথা বাংলাদেশের কাঙ্ক্ষিত ভবিষ্যত হ‌ও।তুমিই হ‌ও আগামীর বাংলাদেশের ভীষণ আস্থা ও বিশ্বাসের এক পরম নির্ভরতার প্রতীক।
তাই আজ তুমি বিতর্কিত নয়,তুমিই বুদ্ধিদীপ্ত বিচক্ষণ হ‌ও! আর তার‌ই প্রমাণ দাও,দিয়ো‌ও…….

#মনে_রেখো 
নিরাপদ সড়ক চাওয়ার নামে তুমিও যেনো রাজপথে যাচ্ছেতাই বেড়াজাল সৃষ্টি করো না।ছাত্র বলে হয়তো সাধারণের ক্ষমা পাবেনা।
আর জণগণের সরকার?
সেতো জনগণের জানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে সাংবিধানিক নিয়মের বাইরে চলতেই পারবে না।

নিরাপদ সড়ক সার্বজনীন আমাদের সকলের কাম্য…
তাই, ভালো থেকোভালো রেখো

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর