শিরোনাম

ইতিহাসে প্রথম বাজেট উত্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৮:৫৬:৩৬ পূর্বাহ্ণ - ১৪ জুন ২০১৯ | ৩৫

দেশের সংসদীয় ইতিহাসে এই প্রথম বাজেট বক্তৃতা উত্থাপন করলেন প্রধানমন্ত্রী। অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের পৌনে এক ঘণ্টা পর বাজেট বক্তৃতার বাকি অংশ উত্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী ও সংসদ নেতা শেখ হাসিনা। বিকাল ৪টা ১০ মিনিট থেকে ৪টা ৪০ পর্যন্ত ৩০ মিনিট বাজেট বক্তব্য পাঠ করেন। এসময় সরকার ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা দীর্ঘক্ষণ টেবিল চাপড়িয়ে প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানান।

আজ বৃহস্পতিবার বেলা তিনটায় হলুদ ও সবুজে ছাপা শাড়ি পরা স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে সংসদ অধিবেশন শুরু হয়।

প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রীসহ অন্যান্যরা অধিবেশন কক্ষে প্রবেশ করেন। বাজেট পেশ উপলক্ষে অধিবেশন কক্ষ ছিলো কানায় কানায় পূর্ণ। সংসদ গ্যালারি থেকে ভিআইপি লাউঞ্চ সর্বত্রই ছিল উপচে পড়া ভীড়। বেলা ৩টা ২৫ মিনিটে সম্পূর্ণ ডিজিটাল পদ্ধতিতে নিজের জীবনের প্রথম বাজেট প্রস্তাবনা পড়া শুরু করেন অর্থমন্ত্রী।

বর্তমান আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন সরকারের প্রথম ও দেশের ৪৮তম বাজেটের শিরোনাম ‘সমৃদ্ধ আগামীর পথযাত্রায় বাংলাদেশ, সময় এখন আমাদের, সময় এখন বাংলাদেশের’।
জাতীয় সংসদে ২০১৯-২০ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেট বক্তৃতা শুরু করেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।
বিরতি নিয়ে সংসদ সদস্যদের সহযোগিতায় সেবা শশ্রুষাও দিতে দেখা যায়। অসুস্থতার কারণে শুরুতেই অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল স্পিকারের কাছে কিছু সময় বসে, কিছু সময় দাঁড়িয়ে বাজেট বক্তৃতা দেওয়ার অনুমতি নেন। তবে শুরু থেকেই তাকে ক্লান্ত দেখাচ্ছিল। এসময় অর্থমন্ত্রীকে চোখের ড্রপ দেয়া হলে প্রধানমন্ত্রী নিজে টিস্যু এগিয়ে দেন।

একপর্যায়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অর্থমন্ত্রীর পক্ষে বক্তব্য পড়ে দেওয়ার অনুমতি নিয়ে তা পড়া শুরু করেন।

এ অবস্থায় অর্থমন্ত্রী প্রায় ৪০ মিনিট বক্তৃতা দেওয়ার পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্পিকারের উদ্দেশে বলেন, অর্থমন্ত্রী অসুস্থ। স্পিকার অনুমতি দিলে তিনি অর্থমন্ত্রীর পক্ষে বাজেট বক্তৃতা পড়ে দিতে চান। তখন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশে বলেন, প্রধানমন্ত্রী বক্তৃতা পড়ে দিতে পারেন এবং তিনি চাইলে বসেই বক্তৃতা পড়তে পারেন। পরে ৪টা ১০ মিনিটের দিকে প্রধানমন্ত্রী অর্থমন্ত্রীর পক্ষে বাজেট বক্তব্য পড়া শুরু করেন। এসময় সংসদ সদস্যরা টেবিল চাপড়ে সহমত প্রকাশ করেন।

বাজেট বক্তৃতার একপর্যায়ে বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এমপিওভুক্তির জন্য অর্থ বরাদ্দ রাখার বিষয়। বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী অর্থমন্ত্রীর বক্তৃতা পড়তে গিয়ে বলেন, ‘আমি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’ এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্মিত হাসতে থাকেন এবং বলেন, ‘মাননীয় স্পিকার আমি কিন্তু অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য পড়ে দিচ্ছি।’ তখন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেন, বক্তৃতার যত জায়গায় প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ দেওয়া হয়েছে, সব জায়গা যেন প্রধানমন্ত্রী পড়েন।

সর্বশেষ