শিরোনাম

আমাজনের ১২ লাখ ডলারের পণ্য জালিয়াতি স্বামী-স্ত্রীর

সর্বশেষ আপডেটঃ ০৫:৫৬:৫৭ অপরাহ্ণ - ০৫ অক্টোবর ২০১৭ | ১৮৪

বিশ্বের বৃহত্তম অনলাইন শপিং রিটেইলার আমাজন থেকে ১২ লাখ ডলারের বেশি মূল্যের পণ্য চুরি করেছে বলে স্বীকার করেছে যুক্তরাষ্ট্রের এক দম্পতি। খবর বিবিসির।

তারা যে পণ্যগুলো অর্ডার করেছিল সেগুলো ভাঙা কিংবা নষ্ট ছিল বলে বারবার দাবি করে এই কাজ করেছেন তারা।

ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের বাসিন্দা এরিন জোসেফ ফিন্যান (৩৮) এবং লিয়া জেনেত্তি ফিন্যান (৩৭) দম্পতি প্রতারণা এবং অর্থ পাচারের অপরাধ স্বীকার করেছে।

এ দম্পতির ৫ লাখ মার্কিন ডলার জরিমানা এবং সর্বোচ্চ ২০ বছরের কারাদণ্ড হতে পারে। আগামি ৯ নভেম্বর এ রায় ঘোষণা করা হবে।

স্থানীয় একটি সংবাদপত্র বলছে, ফিন্যান দম্পতি অনলাইনে শত শত ভুয়া অ্যাকাউন্ট ব্যবহারের মাধ্যমে আমাজান থেকে অনলাইনে পণ্য ক্রয়ের অর্ডার দিয়েছে।

এগুলোর মধ্যে রয়েছে বিভিন্ন ইলেক্ট্রনিক সামগ্রি যেমন স্যামসাং স্মার্ট ওয়াচ, গোপ্রো ক্যামেরা, এক্সবক্স ভিডিও গেম কনসোল ইত্যাদি।

অর্ডার করা পন্যগুলো হাতে পাওয়ার পর তারা আমাজনের কাস্টমার সার্ভিস বিভাগে যোগাযোগ করে জানায় যে পাঠানো গেজেটগুলো ভাঙা বা কাজ করছে না।

আমাজানের নীতি অনুযায়ী তারপর ঐ পণ্যের পরিবর্তে আরেকটি বিনামূল্যে পাঠিয়ে দেয়।

তারপর এই পণ্যগুলো ফিন্যান দম্পতি আরেকজনের কাছে বিক্রি করে, যিনি আবার এই পণ্যগুলো নিউইয়র্কের এক বেনামী প্রতিষ্ঠানের কাছে বিক্রি করে।

তারপর মার্কিন ডাক বিভাগের অনুসন্ধান বিভাগ,ইন্ডিয়ানা রাজ্য পুলিশ এবং অভ্যন্তরীণ রাজস্ব বিভাগের যৌথ তদন্তে এই দম্পতির জালিয়াতি ধরা পড়ে। এরপর ঐ দম্পতি এবং তাদের সহযোগীকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এ বিভাগের জনপ্রিয় খবর

সর্বশেষ
জনপ্রিয় খবর